brandbazaar globaire air conditioner
ব্রেকিং নিউজঃ

৮৫-৯০ হাজার টেহার মত পাইছি, মৃত্যুর আগ পর্যন্তু মনে থাকবে: প্রতিবন্ধী কাশেম

৮৫-৯০ হাজার টেহার মত পাইছি, মৃত্যুর আগ পর্যন্তু মনে থাকবে: প্রতিবন্ধী কাশেম
Content TOP

ছবিলা গ্রামের প্রতিবন্ধী আবুল কাশেম ও আবুল হাসেম যৌথভাবে একটি হাঁসের খামার পরিচালনা করে আসছিলেন।

সম্প্রতি এক সকালে প্রতিদিনের মতো খামার থেকে হাঁস বের করে হাওড়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তারা। প্রথমে বাড়ির কাছেই একটি একটি ধান ক্ষেতের পানিতে হাঁসগুলো ছাড়ার পর কয়েকটি হাঁস অসুস্থ হতে থাকে। এভাবে ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যেই খামারের ৮ শতাধিক হাঁস মারা যায়।

এরপরই সেই কাশেমের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। সিদ্ধান্ত নেয় সবাই মিলে ৮০০ হাঁস কিনে দেওয়ার। সেই টাকা ইতোমধ্যেই পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন প্রতিবন্ধী আবুল কাশেম।

তিনি বলেন, ‘৮৫-৯০হাজার টেহার মত পাইছি। এতেই আমি চিরকৃতজ্ঞ। মরার আগের দিন পর্যন্ত মনে থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘যতভাবে সহয়তা পেয়েছি, তা ভাষায় প্রকাশ করার মত নয়। আমি তাদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ।’

আপ্লুত কাশেম আরো জানান, ছাত্রলীগের বিভিন্ন জায়গা থেকে সাহায্য পেয়েছি। এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়া থেকে ১৪ হাজার ২৮০ টাকা, নেত্রকোনা জেলা থেকে ২৮ হাজার এবং টিএনও স্যারের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা পেয়েছি। এছাড়া বেশ কয়েকটি স্থান থেকে ১৫ হাজার, ৫ হাজার ও ৭ হাজার টাকাসহ সবমিলিয়ে ৮৫-৯০ হাজার টাকা পাইছি।

এগুলো দিয়ে প্রায় ৮০০ হাঁস কেনা যাবে। যদিও হাঁসপ্রতি দাম ১৪০ হওয়ায় আরো কিছু টাকা লাগে। তবে এতেই আমি ভীষণ খুশি।

কাশেম আরো বলেন, সবাই যেভাবে সাহায্য করেছে। আশা করছি- ঘুরে দাঁড়াতে পারব। কৃতজ্ঞ কাশেম কথা বলার একপর্যায়ে চুপ হয়ে যান।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার আরেকটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ছাত্রলীগ সম্পাদক রাব্বানী। নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যকাউন্টে তিনি জানিয়েছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ। ছাত্রলীগ পরিবারের সমন্বিত প্রচেষ্টায় নেত্রকোনার হতদরিদ্র শারীরিক প্রতিবন্ধী আবুল কাশেম ভাই এর জন্য ৮০০ হাঁস কেনার পর্যাপ্ত অর্থ যোগান হয়ে গেছে। আবুল কাশেম ভাই মুঠোফোনে আমাকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মানবিক প্রয়োজনে পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মীকে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ দিয়েছেন এবং সবার জন্য আল্লাহর কাছে খাস দিলে দোয়া করবেন বলে জানিয়েছেন।

এভাবেই দেশরত্নের আদর্শিক কর্মী হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবার ‘এক হয়ে’ গণমানুষের যেকোনো যৌক্তিক এবং নৈতিক প্রয়োজনে পাশে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করছে।’

Content TOP

Related posts

body banner camera