১৯ বছরেও সংস্কার হয়নি, এবার হাত লাগালেন স্থানীয়রা

১৯ বছরেও সংস্কার হয়নি, এবার হাত লাগালেন স্থানীয়রা
Content TOP

২০০০ সালের বন্যায় পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মাছখোলা ক্লাব মোড় থেকে মাছখোলা বাজার পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটারের সড়কটির। তারপর কেটে গেছে দীর্ঘ ১৯টি বছর। তবুও এ সড়কটির উন্নয়নে এগিয়ে আসেনি কোনো জনপ্রতিনিধি কিংবা স্থানীয় প্রশাসন। সংস্কার হয়নি স্থানীয় জনগণের চলাচলের অন্যতম সড়কটির। অবশেষে স্থানীয় জনতার স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে সড়কটির।

বুধবার সকাল ১০টায় স্থানীয় প্রত্যাশা ক্লাবের সভাপতি আলাউদ্দিনের অর্থায়নে ও ক্লাবের সদস্যদের স্বেচ্ছাশ্রমে সড়কে সংস্কার কাজ শুরু করা হয়। অপরদিকে নীরব রয়েছেন জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসন।

জন প্রতিনিধি থাকতে আপনারা কেন স্বেচ্ছায় রাস্তাটি সংস্কার করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে প্রত্যাশা ক্লাবের সভাপতি আলাউদ্দিন জানান, আমাদের এ রাস্তাটি অবহেলিত। দীর্ঘ ১৯ বছরে কোনো জনপ্রতিনিধি এ রাস্তাটি সংস্কারে উদ্যোগ নেননি। তাই আমরা নিজেরাই চেষ্টা করছি। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাছখোলা ক্লাব মোড় থেকে বাজার পর্যন্ত রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত আর খানা খন্দে পরিণত হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

মাছ খোলা এলাকার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, রাস্তার যে অবস্থা তাতে রিকশা ও ভ্যানে যাতায়াত করা যায়না।

একই এলাকার বাসিন্দা শামিম হোসেন বাবু জানান, ভোটের সময় অনেক প্রার্থী এসে রাস্তা সংস্কার করার কথা বলে ওয়াদা করেন। কিন্তু ভোট আসে যায়, রাস্তার কোনো সংস্কার হয়না।

মাছখোলা গ্রামের আমিরুল ইসলাম জানান, প্রতিদিন হাজার হাজার লোক এই রাস্তা দিয়ে সাতক্ষীরা শহরে যাতায়াত করেন। রাস্তাটি খারাপ থাকায় শহর থেকে কোনো ভ্যান ও ইজি বাইক এই এলাকায় আসতে চায় না। এমনকি এই এলাকার কোনো মানুষ অসুস্থ হলে তাৎক্ষনিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া যায় না।

ক্লাব সদস্য আলম, জামাল উদ্দিন, ওসমান গনি, আব্দুল হাকিম, রবিউল ইসলাম ও খোকনসহ অনেকেই জানান, দীর্ঘ ১৯ বছর রাস্তাটি সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। তাই আমরা সদস্যরা মিলে স্বেচ্ছাশ্রমে এ রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু করেছি। সড়কটি দ্রুত সংস্কার করে কার্পেটিং করা হলে আমাদের ভোগান্তি কমে যাবে।

Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera