brandbazaar globaire air conditioner
ব্রেকিং নিউজঃ

মোংলায় পশুর হাটে নেই স্বাস্থ্যবিধি, বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি

মোংলায় পশুর হাটে নেই স্বাস্থ্যবিধি, বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি
epsoon tv 1

করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই মোংলায় পশুর হাটে ভিড় জমাচ্ছে মানুষ, আর এতে করে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা রয়েছে। 

ঈদের বাকি আর মাত্র এক দিন। তাই শেষ মুহূর্তে সকাল থেকে শহরের চটেরহাটে বসেছে কোরবানির পশুর হাট। তবে শেষ মুহূর্তে ব্যবসায়ীরা বাজারে গরু এনে পড়েছে বিপাকে। ক্রেতা নাই এবং দামও অনেক কম তাই লোকসানের আশঙ্কা করছেন গরু ব্যবসায়ীরা।
এদিকে বাজারে গরু ক্রেতা হুমায়ুন কবির বলেন, ঈদের বাকি মাত্র একদিন, কোরবানির জন্য এর আগে গরু কিনি নাই। এই বাজারে ছোট বড় অনেক গরু রয়েছে, দামও কম। তাই এ বছরের ঈদুল আজহার জন্য গরু কিনতে এসে কমদামে পেয়ে অনেক খুশী আমরা।

অপরদিকে, পশুর হাটে সামাজিক দূরত্ব না মেনে বাজারে ক্রেতা বিক্রেতারা ছুটে বেড়াচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রশাসনের নজরদারি ছাড়া স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মানুষের সমাগম ঘটিয়ে পশুর হাটের আয়োজন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সচেতন নাগরিকরা।

বাজার এলাকার বাবুল জোমাদ্দার বলেন, এ বছরের ঈদের পশু কেনাকাটার জন্য বাজারে আজই বেশী গরু ছাগল এসেছে। কিন্তু বিক্রেতা বেশী-ক্রেতা কম মনে হচ্ছে, তারপরেও ছোট্ট বাজার, এখানে গা ঘেঁষাঘেষি করে মানুষ চলাচল করছে। করোনা ভাইরাসের জন্য এটা জন্য একটা ঝুঁকি বলে আমরা মনে করি।

বাজারের মোস্তফা কামাল ইজারাদার বলছেন, এ অঞ্চলের মানুষের বাজারটি দীর্ঘদিনের পরিচিত। শুধু গরু ছাগল নয় এখানে মানুষের চাহিদামাফিক সবকিছুই পাওয়া যায়। তবে কোরবানির জন্য সবেমাত্র বাজারটি জমজমাট হয়েছে, এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য বাজারে তাদের লোক রয়েছে। হ্যান্ডমাইক দিয়ে সার্বক্ষণিক সচেতন করা হচ্ছে এবং তাদের তরফ থেকে বাজারে আসা সকলের কাছে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে।

এদিকে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বলছে, ঈদের শেষ মুহূর্তে পশু বিক্রির হাটে প্রশাসনের নজরদারি অব্যাহত রয়েছে, মানুষের ভিড়ে অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানছে না, তবে তাদের অভিযান এবং মানুষকে সচেতন করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

epsoon tv 1

Related posts

body banner camera