বাস ভাড়ার টাকা নিয়ে কেটে পড়াই তার কাজ

বাস ভাড়ার টাকা নিয়ে কেটে পড়াই তার কাজ
Content TOP

আনোয়ার হোসেন। বয়স আনুমানিক ৪৫ বছর। ঢাকার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে বহু বাসের টিকিট তিনি একাই বিক্রি করেন। তবে অবাক করা বিষয় হলো সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের কোনো বাসের সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি কোন বাসের টিকিট বিক্রেতা, সুপার ভাইজার তো দূরের কথা কোনো বাসের হেলপারও নন। কিন্তু সায়েদাবাদে আসা দরিদ্র শ্রেণির যাত্রীদের কাছে টিকিট বিক্রির নাম করে টাকা হাতিয়ে নেওয়াটাই মূল উদ্দেশ্য আনোয়ার হোসেনের।

আনোয়ার নিজেকে সায়েবাদে দাঁড়িয়ে থাকা বিভিন্ন গাড়ির স্টাফ পরিচয় দিয়ে অনেক যাত্রীর কাছে থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে কেটে পড়েন। নিরীহ যাত্রীদের টিকিট দেওয়ার নাম করে তাদের কাছে থেকে টাকা নিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এমনই এক প্রতারককে আটক করেছে যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ।

যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আনোয়ার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে আগত অপেক্ষাকৃত দরিদ্র যাত্রীদেরকেই টার্গেট করেন। নিরীহ লোকজনের কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাৎ করে  নেন তিনি। বাস টার্মিনালে নিজেকে বাসের লোকদের মতো পরিচিত করে দূরে দাড়িয়ে থাকেন আনোয়ার। এ সময় ভিড়ের মধ্যে আসা যাত্রীদের তাড়াহুড়ো করে কোথায় যাবে জিজ্ঞাসা করেন তিনি। তখন সেই যাত্রী তার নির্দিষ্ট গন্তব্যের নাম বললে; আনোয়ার ওই যাত্রীকে দূর থেকে একটা গাড়ি দেখিয়ে বলে, আপনি আমাদের ওই গাড়িতে যাবেন।’

‘এরপর তিনি যাত্রীকে বলে দ্রুত টাকা দেন টিকেট এনে দেই। তখন সহজ সরল মানুষগুলোর মধ্যে অনেকে না বুঝেই ঝটপট তার কাছ থেকে ভাড়ার টাকা দিয়ে দেয়। আর ভাড়ার টাকা নিয়েই সেখান থেকে কেটে পড়ে আনোয়ার। প্রতারিত যাত্রীরা টিকেটের আশায় অনেক সময় অপেক্ষায় থাকে, এরপরও যখন আনোয়ার টিকেট নিয়ে আসে না, তখন তারা আনোয়ারের দেখানো সেই বাসে উঠতে গিয়ে বিপত্তিতে পড়ে যান। আর বাসের প্রকৃত লোকজনও এমন ঘটনা শুনে বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে যায়। এভাবেই বেশ কিছুদিন যাবত সরল মানুষজনের সাথে প্রতারণা করে আসছিল আনোয়ার।’

ওসি আরও জানান, আনোয়ারের দ্বারা প্রতারিত হওয়ার পরে যদি কেউ তাকে ধরে ফেলতো, তখন সে বলতো এই যে টিকিটের টাকা আমার লুঙ্গির ভেতরে কোমরে পেঁচানো আছে। আসলে তার লুঙ্গির মধ্যে কোমরে সে টাকা না রেখে অন্য কিছু পেঁচিয়ে রাখতো। এরপর সুকৌশলে আবারও পালিয়ে যেত।’

আজ বুধবার যাত্রাবাড়ী থানার উপ পরিদর্শক (এস আই) আহমেদ নওয়াজীশ এই প্রতারককে আটক করে থানায় নিয়ে যান বলেও জানান ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী।

Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera