brandbazaar globaire air conditioner

বাকৃবিতে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ডে নিরাপত্তাহীনতায় শিক্ষার্থীরা

বাকৃবিতে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ডে নিরাপত্তাহীনতায় শিক্ষার্থীরা
Content TOP

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) শাখা ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভাঙতে ও নতুন কমিটি দেয়ার জন্য নিয়মিত সন্ধ্যা ও রাতে ক্যাম্পাসে মোটরবাইক ও কর্মীদের নিয়ে শোডাউন দিচ্ছে কমিটিতে পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীরা।

শোডাউন নিয়েও সজাগ অবস্থানে রয়েছে বর্তমান কমিটির নেতাকর্মীরাও। এতে যেকোনো সময় ক্যাম্পাসে অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বাড়াতে ক্যাম্পাসে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর মো. সবুজ কাজীকে সভাপতি এবং মিয়া মোহাম্মদ রুবেলকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছর মেয়াদী বাকৃবি ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এর প্রায় এক বছর পর ২১১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর ২০১৮ সালের জুলাই মাসে ছাত্রলীগের আংশিক হল কমিটি এবং পরে ২০১৯ সালের জুন মাসে ৮টি হলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

নতুন কমিটিতে পদ পাবার আশায় গ্রুপিং রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ছেন অনেকেই। বিভিন্ন সময়ে তারা সংঘর্ষে লিপ্ত হচ্ছেন। গত শনিবার রাতেও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হল ও শহীদ শামসুল হক হলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

সম্প্রতি ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীরা বহিরাগতদের সাথে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে সন্ধ্যা ও রাতে ১৫-২০টি মোটরসাইকেল দিয়ে নিয়মিত শো-ডাউন করছে। পদপ্রত্যাশী নেতাদের সাথে যেনো কমিটির কোনো নেতাকর্মীকে না দেখা যায় সে বিষয়ে সতর্ক করে প্রতিটি হলেই নিয়মিত গেস্ট রুম করানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ে সন্ধ্যার পর বহিরাগতদের অনুমতি ব্যতিত অবস্থান না নিতে ও মোটরসাইকেলযোগে শো ডাউন নিষিদ্ধ করে রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল হক বলেন, ক্যাম্পাসে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা মেনে নেয়া হবে না। নিরাপত্তা বাড়াতে ক্যাম্পাসে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।

Content TOP

Related posts

body banner camera