নবাবগঞ্জে ব্যবসায়ী ও কর্মচারীকে কুপিয়ে জখম, গ্রেপ্তার ৩

নবাবগঞ্জে ব্যবসায়ী ও কর্মচারীকে কুপিয়ে জখম, গ্রেপ্তার ৩
Content TOP
 নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি (নবাবগঞ্জ, ঢাকা) ঢাকার নবাবগঞ্জের পুরাতন বান্দুরা বাজারে তুচ্ছঘটনাকে কেন্দ্র করে তপন দাস , তাঁর ভাই স্বপন দাস ও তাঁদের দােকানের কর্মচারী তুষার কে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লােকজন। এঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রােববার রাতে উপজেলার বান্দুরা বাজারে এঘটনা ঘটে। আহত তপন ও স্বপন নতুন বান্দুরা গ্রামের শিবচরন দাসের ছেলে। বান্দুরা বাজারে তাদের রুদ্র কালেকশন নামে জুতার দােকান আছে। প্রত্যক্ষদর্শি ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পুরাতন বান্দুরা বাজারের টোকিও ম্যানসনে স্বপন ও তপনের জুতার দোকান রুদ্র কালেকশনের পাশেই নুরনগর গ্রামের মিজানুর রহমানের রজনী প্রিন্টিং প্রেস নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। রােববার সকালে মিজানুরের প্রিন্টিং প্রেসের সামনে স্বপন একটি জুতার বস্তা রাখে। বস্তাটি রাখা নিয়ে স্বপন ও মিজানুরের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। ঐ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইফতারের ঠিক পূর্ব মূহুর্তে মিজানুর ও তাঁর তিন ভাই শাহ আলম, বুলবুল ও মাহফুজ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে ফিল্ম স্টাইলে রুদ্র কালেকশনে অতর্কিত হামলা চালায় এবং স্বপন দাস, তাঁর ভাই তপন দাস ও কর্মচারী তুষারকে কুপিয়ে আহত করে। এবং দোকানের মালামাল লন্ডভন্ড করে ফেলে। পাশ্ববতী দোকানদাররা এগিয়ে এলে ঘাতকরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত তিনজনকে উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ উপজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তখন কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বপন ও তপনের অবস্থা গুরুত্বর দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ঢাকায় পাঠান। অভিযুক্ত মিজানুর রহমান, শাহ আলম, বুলবুল ও মাহফুজ নুরনগর গ্রামের মৃত মালেকের ছেলে। তাঁরা চারজন আপন ভাই। ঘটনার রাতেই আহতের বড় ভাই সবুজ দাস বাদি হয়ে রোববার ঘাতক মিজানুর রহমান, শাহ আলম, মাহফুজ এবং বুলবুলসহ অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনর বিরুদ্ধে নবাবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত মিজানুর রহমান, শাহ আলম, ও মাহফুজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তবে বুলবুল পলাতক রয়েছে। আহতের বড় ভাই সবুজ দাস বলেন, ওরা সামান্য কারনে আমার ভাইদের মানবিক ভাবে কুপিয় জখম করেছে। তাঁরা এখন হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। অভিযুক্তদের কঠিন শাস্তির দাবি জানান তিনি। স্থানীয়রা আগামীর সময়কে আরো জানান, ঘাতক বুলবুল বান্দুরা ভূমি অফিসে অবৈধভাবে কাজ করছেন। একজন দলিল লেখক হয়ে ভুমি অফিসে কি ভাবে নিয়মিত কাজ করছেন এটাও প্রশ্ন এলাকাবাসির। জাল দলিল ও দুই নম্বর ভাবে খারিজ করে গড়েছে টাকার পাহাড়। এবিষয় নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ও ঐ রাতে ডিউটিতে থাকা ডা. মেজবা উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আহত স্বপন ও তপনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানা হয়েছে। নবাবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক কামরুল হাসান জানান, এঘটনায় আহতের বড় ভাই সবুজ দাস বাদি হয়ে রােববার রাতই মিজানুর রহমান, শাহ আলম, মাহফুজ এবং বুলবুলসহ অজ্ঞাত আরও ২/৩জনর বিরুদ্ধ থানায় মামলা দায়ের করেছে। আমরা বুলবুল ছাড়া ওর ৩ ভাইকে গ্রেপ্তার করেছি। পরে সােমবার সকালে পাঁচদিনের রিমান্ড চেয়ে তাদের আদালত পাঠানাে হয়েছে। অপর আসামী বুলবুল পলাতক রয়েছে তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান পুলিশের ঐ কর্মকর্তা।
Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera