নবাবগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী গরুর দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নবাবগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী গরুর দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
Content TOP

 ফিরোজ হোসেনঃ

ঢাকার নবাবগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী গরুর দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমাদের দেশে অঞ্চলভেদে গৃহপালিত বিভিন্ন ধরনের পশুপাখি দিয়ে নানা ধরনের খেলাধুলার মাধ্যমে বিনোদন দেয়ার আয়োজন করা হয়ে থাকে। সাধারনত পশুপাখি দিয়ে যে বিনোদনের আয়োজন করা হয় এর মধ্যে ষাঁড়ের দৌড় প্রতিযোগিতা অন্যতম। তেমনি পৌষসংক্রান্তি উপলক্ষে রবিবার উপজেলার যন্ত্রাইল ইউনিয়নের চন্দ্রখোলা কালিমন্দিরের মাঠে হারিয়ে যাওয়া সেই দুইশত বছরের ঐতিহ্যবাহী গরুর দৌড় ও কাছি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উৎসুক জনতা গরুর কাছি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা দেখতে এই দিন দুপুরের পর থেকে আয়োজন স্থলে আসতে শুরু করে।

নবাবগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী গরুর দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

কয়েক হাজার দর্শনার্থীর উপস্থিতিতে এ প্রতিযোগিতা শুরু হয়। উক্ত দৌড় প্রতিযোগিতায় ছোট বড় মিলে প্রায় ২০-৩০ টি ষাঁড় গরু অংশগ্রহণ করেন। অার এই ঐতিহ্যবাহী ষাঁড়ের দৌড় ও কাছি ছেঁড়া প্রতিযোগিতা দেখতে বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে ভীড় জমায় হাজারো মানুষ। তবে ঢাকা ও অনান্য জেলা ছাড়া ও পাশ্ববর্তী মানিকগঞ্জ জেলা থেকে অংশগ্রহণ করেছে অনেক দর্শনার্থী । গরুর কাছি ছেঁড়া খেলায় ষাঁড়কে মোটা কাছি দিয়ে মাঠের মধ্য স্থলে একটি খুঁটির সাথে বেঁধে দেয়া হয়। একদল ঢোলক ঢোল পেটানো শুরু করলে গরু লাফালাফি শুরু করে, একপর্যায়ে গরু দৌড় দেয়। দৌড় দিয়ে যদি গরুর গলায় বাঁধা কাছি ছিঁড়তে পারে তবে তাকে প্রাথমিকভাবে বিজয়ী হিসেবে ধরে নেয়া হয়। এবং কাছির মধ্য থেকে যে ষাঁড় বেশি কাছি ছিঁড়তে পারবে তাকে প্রথম স্থান অধিকারী হিসেবে গন্য করা হয়। গরুর কাছি ছেঁড়া খেলাটি দেখতে খুব ঝুঁকিপূর্ণ। কারন অনেক সময় গরুর কাঁছি ছেঁড়ানোর সময় গরু সিংগের অাঘাতে অাহত হয় অনেকেই। তারপর ও এই ঐতিহ্যবাহী খেলাটি দেখতে দর্শনার্থীদের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। তবু গরুর কাছি ছেঁড়া খেলা দেখার জন্য হাজারো মানুষের ঢল নামে পরন্ত বিকেলে। গরুর দৌড় প্রতিযোগিতার পর দিন থেকেেই দশ দিনের জন্য বসে থাকে গ্রাম্য মেলা।

Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera