brandbazaar globaire air conditioner

দুর্বল হচ্ছে সমুদ্রের স্রোত, চিন্তিত বিজ্ঞানীরা

দুর্বল হচ্ছে সমুদ্রের স্রোত, চিন্তিত বিজ্ঞানীরা
epsoon tv 1

হলিউডের ‘দ্য ডে আফটার টুমোরো’ সিনেমায় জলবায়ু পরিবর্তনের ভয়াবহতা তুলে ধরা হয়েছিল। সিনেমাটিতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে সমুদ্রের স্রোত বন্ধ হওয়ার কারণে নির্মম প্রাকৃতিক দুর্যোগ দর্শকের মনে নাড়া দিয়েছিল। কিন্তু এবার বাস্তবে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পৃথিবীর ভবিষ্যৎ হয়তো সেদিকেই এগোচ্ছে।

পটসডাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতি গবেষণায় সমুদ্রের স্রোত কমার প্রমাণ মিলেছে। আটলান্টিক মহাসাগর, ভারত মহাসাগর আর প্রশান্ত মহাসাগরসহ পুরো পৃথিবীর সমুদ্রে আটলান্টিক মেরিডিওনাল ওভারটার্নিং সার্কুলেশনের গভীর স্রোতের মাধ্যমে পানি প্রবাহিত হয়। এই স্রোত উত্তর আটলান্টিকের দিকে দুর্বল হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এর আগে ২০১৮ সালের একটি গবেষণার ফলাফলেও ভয়ানক এ তথ্য উঠে আসে।

বিজ্ঞানীদের বিশ্বাস, উত্তর আটলান্টিকের গভীর স্রোত দুর্বল হয়ে যাওয়ার কারণ উষ্ণায়ন এবং বরফ গলার সঙ্গে সম্পর্কিত, যা সমুদ্রের পানির ভারসাম্যকে পরিবর্তিত করছে। গত ১৬শ’ বছরের তুলনায় বর্তমানে অন্তত ১৫ শতাংশ দুর্বল হয়েছে সেখানকার সমুদ্রের স্রোত। বিগত সহস্রাব্দের অভূতপূর্ব পরিমাণের স্রোত এখন বেশ দুর্বল। স্রোতের স্বাভাবিকতা নষ্ট হওয়ায় পৃথিবীতে নানাভাবে তা প্রভাব ফেলছে।

পটসডাম বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা তথ্য বলছে, এর ফলে খুব শিগগির পৃথিবীতে বড় ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সম্ভাবনা নেই। কিন্তু আটলান্টিক মেরিডিওনাল ওভারটার্নিং সার্কুলেশনে যদি চলমান গতিতেই পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত থাকে, তাহলে ২১০০ সাল নাগাদ ৩৪ থেকে ৪৫ শতাংশ পর্যন্ত কমবে সমুদ্রের স্রোত। আর হলিউডের ‘দ্য ডে আফটার টুমোরো’ সিনেমা ইতিমধ্যে পূর্বাভাস দিয়েই রেখেছে যে, জলবায়ুর এমন পরিবর্তন কী ধরনের বিপর্যয় নিয়ে আসতে পারে পৃথিবীতে।


epsoon tv 1

Related posts

body banner camera