brandbazaar globaire air conditioner

কেকেআর ভার্সেস কেকেআর, জিতল কারা?

কেকেআর ভার্সেস কেকেআর, জিতল কারা?
epsoon tv 1

আইপিএল শুরু হতে এখনো বাকি বেশ কয়েকদিন। তবে সময়টা হেলা-ফেলায় কাটাতে রাজি নয় ফ্রাঞ্চাইজিগুলো। তাই তো নিজেদের মধ্যেই দুভাগে ভাগ হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ খেললো কলকাতা নাইট রাইডার্সের ক্রিকেটাররা। যেখানে সাকিব আল হাসানের টিম পার্পেল হেরেছে ১০ উইকেটে। শুভমান গিলের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে জয় পেয়েছে টিম গোল্ড।

সাকিব আল হাসান দেশ ছেড়েছেন অনেকদিন। ভারতে পৌঁছে ছিলেন কোয়ারেন্টিনে। ৭ দিনের অবরুদ্ধ জীবনটা যে উপভোগ করেননি একদমই তা নয়। বিষয়টি তিনি নিজেই জানিয়েছেন অনলাইনে দেওয়া বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে। তিন দফায় কোভিড টেস্ট এবং আইসোলেশন শেষে অবশ্য মাঠে নেমেছেন বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডার। তার মতো, কোয়ারেন্টিন শেষ করেছেন স্কোয়াডের আরও অনেকেই।

তাই তো, এবার নিছক অনুশীলনে আটকে না থেকে, নিজেদের মধ্যেই ম্যাচ খেলে ফেললো কলকাতা নাইট রাইডার্স। দল দুটি ভাগ হলো টিম গোল্ড এবং টিম পার্পেল নামে। যেখানে, গোল্ডের অধিনায়ক শুভমান গিলের একাদশে ছিলেন নিতীশ রানা, করুণ নায়ার, দিনেশ কার্তিক, নাগরকোটি, হরভজন সিং প্রসিদ্ধ কৃষ্ণারা। আর বেন কাটিং এর নেতৃত্বে পার্পেল দলে ছিলেন সাকিব আল হাসান, টিম সেইফার্ট, রাহুল ত্রিপাঠি, পবন নেগি, শিভাম মাভির মতো ক্রিকেটাররা।

টস নিয়ে কোন বিপত্তি হয়নি। যেহেতু ম্যাচটা নিজেদের মধ্যে, তাই ম্যাককালামই ঠিক করে দেন কারা ব্যাট চালাবেন আর কারা বল ছুড়বেন। তার সিদ্ধান্তে গোল্ডের হাতে তুলে দেওয়া হয় বল।

ব্যাটিং এ নেমে শুরুটা একেবারেই ভালো হয়নি পার্পেল বাহিনীর। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করা টিম সেইফার্ট ফিরে যান বরুণ চক্রবর্তীর ঘূর্ণিতে। সঙ্গি হারিয়ে টিকেননি রাহুল ত্রিপাঠীও। দুই ওপেনারকে হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলের হাল ধরেন সাকিব এবং গুরকিরাত মান। কিন্তু, মান টিকে গেলেও ব্যর্থ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। ফিরেছেন ৭ রান করে। দীর্ঘ বিরতির পর ব্যাট হাতে একেবারেই সচ্ছ্বন্দে ছিলেন না মিস্টার সেভেন্টি ফাইভ। ভেঙ্কটেশ আইয়ারের স্লোয়ারে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি।

শেষ পর্যন্ত টিম পার্পেলের সংগ্রহ দাঁড়ায় সব উইকেট হারিয়ে ৮৭ রান।

জবাব দিতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পায় টিম গোল্ড। নিতিশ রানা এবং শুভমান গিলের ব্যাটে চোখে ধাঁধা লেগে যায় নেগি, মাভিদের। ব্যাটের পর বল হাতেও মুন্সিয়ানা দেখাতে পারেন নি সাকিব আল হাসান। মাত্র ২ ওভার বল করার সুযোগ পান এ অলরাউন্ডার। যেখানে ছিল না কোনো উইকেট।

প্রথম ওভারে অবশ্য ব্যাটসম্যানদের সমীহ আদায় করে নিয়েছিলেন সাকিব। ৬ বলে রান দেন মাত্র ৩। তবে, দ্বিতীয় ওভার করতে এসে বেধরক পিটুনি খান শুভমান গিলের হাতে। সাকিবের ওভারে ২ ছক্কায় ১৩ রান নেন গোল্ড অধিনায়ক।

সাকিবের মতোই ব্যর্থ হন পার্পেলের বাকিরাও। ফলাফল, ১০ উইকেটের জয় পায় গিল বাহিনী।

১১ এপ্রিল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের আইপিএল মিশন শুরু করবে সাকিবের কলকাতা নাইট রাইডার্স। এর আগে ৯ এপ্রিল উদ্বোধনী ম্যাচ খেলবে ব্যাঙালুরু এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।


epsoon tv 1

Related posts

body banner camera