ব্রেকিং নিউজঃ

কালকিনিতে কলেজ ছাত্রের হাত পা কেটে নেয়ায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু

কালকিনিতে কলেজ ছাত্রের হাত পা কেটে নেয়ায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু
Content TOP
মাদারীপুর প্রতিনিধি
মাদারীপুরের কালকিনিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিবাদমান দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময়  তিতুমীর কলেজের মাস্টার্সের ছাত্র মিরাজ ঘরামী নামের এক শিক্ষার্থীর ডান হাতের কব্জি ও বাম পায়ের গোড়ালি কেটে নিয়ে যায়।গুরুতর অবস্থায় তাকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল কিন্তু অবস্থা বেশি খারাপ হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় সেখানে ৮ দিন চিকিৎসাধিন অবস্থায় বুধবার দিবা গতরাত ১টার সময় তার মৃত্যু হয়।জানাযায় গত ৪-১০-১৮ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমনের সর্মকদের সাথে ৫ নং ওয়ার্ডেও ইউপি মেম্বার আকতার শিকদার ও ৯ নং ওয়ার্ডেও ইউপি মেম্বার খবির মৃধার গ্রুপের সাথে গত ইউপি নির্বাচন থেকেই দ্বন্ধ চলে আসছিল। এই দ্বন্ধের জের ধরে কিছু দিন পরপরই দুই গ্রুপের সাথে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ হয়। সেই সূত্রে ধরেই বৃহস্পতবার সকাল থেকেই বাঁশগাড়ির মধ্যরচর গ্রামে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হলে সংঘর্ষ চলাকালে নিজ হাতের বোমা বিস্ফোরণে ৯ নং ইউপি মেম্বার খবির মৃধা নিহত হন। এসময় তিতুমীর কলেজের ছাত্র মিরাজ ঘরামীর বাম পায়ের গোড়ালি ও ডান হাতের কব্জি কেটে নিয়েনেয় আক্তার গ্রুপের লোকেরা।এর ধারা বাহিকতায় মিরাজ ঘরামির ভাই বাদি হয়ে কালকিনি থানায় মামলা করেন। রিপট লেখা পর্যন্ত এখন লাশ ঢাকা থেকে এসে পৌছাইনি।এদিকে মিরাজ ঘরামীর মৃত্যু হলে ওই এলাকা শান্ত রাখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন বলেন আমার সর্মথোকেরা কারসাথে কোন রকম ঝামেলায় জড়াতে চায়না ওরা এসে আমাদের লোকেদেরকে ধরে নিয়ে হাত পা কেটে দিল এর কারনে মিরাজ ঘরামীর মৃত্যু হল আমি এর সঠিক বিচার চাই। ইউপি মেম্বার আকতার শিকদার সঙ্গে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাকে পাওয়া যাইনি। মাদারীপুর পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার বলেন ওই এলাকা শান্ত রাখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে এবং আইন আনুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হবে
Content TOP

Post source : কালকিনিতে কলেজ ছাত্রের হাত পা কেটে নেয়ায় কলেজ ছাত্রের মৃত্যু

Related posts

Leave a Reply

body banner camera