আওয়ামী লীগ সরকারের চার বছর পূর্ণ হবে : কী হবে আগামী ৫ জানুয়ারি

আওয়ামী লীগ সরকারের চার বছর পূর্ণ হবে : কী হবে আগামী ৫ জানুয়ারি
Content TOP

Brand Bazaar

আওয়ামী লীগ সরকারের ক্ষমতার চার বছর পূর্ণ হবে আগামী ৫ জানুয়ারি। ২০১৪ সালের এই দিনে বিএনপিবিহীন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। এরপর প্রতিবছর বিরোধী দল বিএনপি দিনটিকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস এবং আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র রক্ষা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। দিনটি উপলক্ষে উভয় দলই পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি দিয়ে আসছে বলে অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার শঙ্কা দেখা দিচ্ছে জনমনে। আর চারদিন পরই ৫ জানুয়ারি। তাই জনগণের শঙ্কা হচ্ছে ওইদিন কি হবে দেশে।

আওয়ামী লীগ সরকারের চার বছর পূর্ণ হবে : কী হবে আগামী ৫ জানুয়ারি

বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায়। কারণ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই ৫ জানুয়ারি সমাবেশ ডাকে বিএনপি। একইদিন একইস্থলে সমাবেশ করার ঘোষণা দেয় আওয়ামী লীগও। রাজধানীর পাশাপাশি সারা দেশেই ৫ জানুয়ারি ঘিরে কর্মসূচি থাকে দুদলের। এবার এখনও সমাবেশের ঘোষণা না দিলেও কিধরনের কর্মসূচি আসবে তা নিয়ে প্রস্তুতি চলছে। তবে প্রতিটি কর্মসূচিতে শেষ পর্যন্ত পিছু হটছে বিএনপি। আর জয় হচ্ছে পুলিশের, না হয় আওয়ামী লীগের। দুদলের সমাবেশ একই স্থানে হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিলেই ঢাকা মহানগর পুলিশ সমাবেশের অনুমতি দেয় না। তখন বিএনপি কর্মসূচি প-ের প্রতিবাদে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করছে এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সরকার ও পুলিশবাহিনীকে বিষোদগার করে মনের ক্ষোভ ঝাড়ছে। কখনো কখনো বড় বড় কথা বলছে কিংবা প্রতিবাদে বিবৃতি। তবে এবার বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার লন্ডন সফর শেষে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছার পর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছিল তাকে সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য। এছাড়াও কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করতে গেলেও তাকে এক নজর দেখার জন্য পথে পথে ব্যাপক শোডাউন করেছে দলীয় নেতাকর্মীরা। সর্বশেষ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদার হাজিরার সময়ও শোডাউন করে সাহস দেখিয়েছে নেতাকর্মীরা। এসব তৎপরতা দেখে অনেকেই ধারণা করছেন এবার ৫ জানুয়ারি কর্মসূচি দিয়ে ঘরে বসে চুপচাপ না-ও থাকতে পারে বিএনপি। অর্থাৎ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমোদন না পেলেও অন্তত দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার চেষ্টা করবে। তাতে যদি সিটি করপোরেশন ও পুলিশ অনুমোদন না দেয় তাহলে রাজপথে নামার চেষ্টা করতেও পারে। কারণ বিএনপির একাধিক নেতা মনে করছেন আন্দোলন করে সহায়ক সরকারের দাবি আদায় করতে হলে বিএনপিকে ৫ জানুয়ারি রাজপথে নামতে হবে। নইলে আওয়ামী লীগ ও জনগণের কাছে দলটি আগের মতো দুর্বল বলেই প্রমাণ হবে। ৫ জানুয়ারি কি কর্মসূচি দেওয়া হবে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেনেন্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান আমার সংবাদকে বলেন, কি ধরনের কর্মসূচি দেওয়া হবে তিনি অবগত নন। তবে অবশ্যই দুয়েকদিনের মধ্যে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera