অনিদ্রার সমস্যা দূর করতে পান করুন ৫ টি ঘুম সহায়ক পানীয়

অনিদ্রার সমস্যা দূর করতে পান করুন ৫ টি ঘুম সহায়ক পানীয়
Content TOP

অনিদ্রার সমস্যা কতোটা মারাত্মক হতে পারে তা যারা এই সমস্যায় ভুগছেন তারা বেশ ভালো ভাবেই জানেন। অনিদ্রার সমস্যা শুধুমাত্র ঘুমের সাথে সম্পর্কিত ভেবে থাকলে ভুল করবেন। কারন এই অনিদ্রা সমস্যা দেহের জন্য বেশ মারাত্মক। ঘুম কম হলে এবং অনিদ্রার সমস্যায় ভুগলে ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগেও আক্রান্ত হতে দেখা যায় অনেককে। কারণ ঘুম না হওয়া এবং ভেঙে ভেঙে ঘুম হওয়ার মতো সমস্যা দেহে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। তাই অনিদ্রাকে অবহেলা নয় একেবারেই। অনিদ্রার সমস্যা দূর করতে অনেকেই ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়ে থাকেন।

13925320_931062833671374_2150733992390824802_n

সুস্থ্য থাকার জন্য প্রতি রাতে একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুম অপরিহার্য। কিশোর-কিশোরীদের প্রয়োজন নয় থেকে ১০ ঘণ্টা। আর স্কুলগামী শিশুদের জন্য প্রয়োজন ১০ বা তারও বেশি ঘণ্টা। এ ছাড়া সংক্রমণজনিত রোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত ঘুমের বিকল্প নেই।

এই সমস্যার কিছু প্রাকৃতিক সমাধানও রয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে আজকে আপনাদের জন্য রইল তিনটি স্বাস্থ্যকর ঘুম সহায়ক পানীয়। শোয়ার পূর্বে এই পানীয় পান করলে অনিদ্রা সমস্যা দূর হতে সহায়তা করবে।

লেমন বাম চা

মেরিল্যান্ড মেডিকেল সেন্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে, মধ্যযুগ থেকে ভালো ঘুমের জন্য ও দুশ্চিন্তা হ্রাসে লেমন বাম ব্যবহৃত হয়ে আসছে। পর্যাপ্ত ঘুমের জন্য এর পাতা গরম পানিতে মিশিয়ে চা হিসেবে পান করা যেতে পারে। এটি মস্তিষ্ককে রিলাক্স দেয়।

গরম দুধ ও মধু

দুধে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যামিনো অ্যাসিড ট্রিপটোফ্যান। এটি মস্তিষ্ককে শান্ত রাখে এবং ঘুমাতে সাহায্য করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, গরম দুধ ট্রিপটোফ্যানের মাত্রা কমিয়ে দেয়। পক্ষান্তরে, শরীরের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা বাড়িয়ে দেয়। যা মস্তিষ্ককে আরাম দেয়। ফলে ক্ষণিকেই ঘুম চলে আসে।
এ ছাড়া পর্যাপ্ত ঘুমের জন্য গরম দুধ ও মধুর মিশ্রনও বেশ কার্যকর। এ পদ্ধতিটি এরকম- ১ গ্লাস দুধ নিন এবং তা গরম করতে দিন। তাতে ১ টেবিল চামচ মধু মেশান। সম্ভব হলে ১ চা চামচের এক চতুর্থাংশ জায়ফল মেশান। এরপর তা ঠাণ্ডা করুন। এরপর বিছানায় শোয়ার ৩০ মিনিট আগে তা খেয়ে ফেলুন। এতে ঘুম হবে চমৎকার। সকালে উঠে মেজাজটাও থাকবে ফুরফুরা।

13319705_887717598005898_3066462706435228240_n

কলার জুস

বিছানায় যাবার আগে দারুণ পানীয় কলার জুস। এটি খুবই সুস্বাদু ও তৈরি করা খুবই সহজ। চমৎকার সুস্বাদু ও সুস্বাস্থ্যকর কলার জুস যেভাবে তৈরি করা যায় একটি পাকা কলার অর্ধেক নিন। তাতে টেবিল চামচ বাদামের মাখন ও আধা কাপ সয়া সস মেশান। এরপর তা ভালোভাবে নেড়ে খেয়ে ফেলুন। অতপর ঘুমাতে যান। কখন যে ঘুম আসবে তা আপনি টেরই পাবেন না। যাদের ঘুম আসে না সকালে উঠে তারা বলতে বাধ্য হবেন, আজ বেশ ঘুম ঘুমিয়েছি।

পুদিনা চা

চা/কফির ক্যাফেইন ঘুমের উদ্রেক করে না। বরং ঘুম দূর করতে সহায়তা করে। কিন্তু পুদিনা চা খুব ভালো ঘুম সহায়ক। ২ কাপ পানি ফুটতে দিন চুলায়। এতে কিছু পুদিনা পাতা ছেঁচে দিয়ে দিন। পানি ফুটে ১ কাপ পরিমাণ হয়ে এলে তা নামিয়ে নিন এবং মধু মেশান। এই চা পান করুন ঘুমুতে যাওয়ার ১০ মিনিট পূর্বে। পুদিনা পাতা মস্তিষ্ককে রিলাক্স করে ঘুমের উদ্রেক করবে।

জায়ফল ও দুধের পা

নীয়জায়ফল ও দুধের মধ্যে রয়েছে মস্তিষ্ককে রিলাক্স করার প্রাকৃতিক ক্ষমতা। এতে খুব দ্রুত ঘুম চলে আসে। এই পানীয়ের জন্য ১ গ্লাস পরিমাণ দুধ প্রথমে ফুটিয়ে নিন। দুধ ফুটিয়ে এতে ১ থেকে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে ফেলুন ঘন ঘন নেড়ে।
এবার দুধ কিছুটা ঠাণ্ডা হতে দিন। দুধ কিছুটা ঠাণ্ডা হয়ে এলে গরম অবস্থাতেই এতে জায়ফল গুঁড়ো ১/৪ চা চামচ দিয়ে মিশিয়ে ফেলুন। এবার শুতে যাওয়ার পূর্বে চায়ের মতো ছোটো ছোটো চুমুকে পান করে নিন।

Content TOP

Related posts

Leave a Reply

body banner camera