ব্রেকিং নিউজঃ

লালমোহনে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অদ্ভুত শাস্তি!

লালমোহনে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অদ্ভুত  শাস্তি!
bodybanner 00

মাছুম বিল্লাহ.ভোলা:

ভোলার লালমোহন উপজেলার ১১৬ নং পশ্চিম চর উমেদ আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র/ছাত্রীরা পড়া না পারলেই দেওয়া হচ্ছে অদ্ভুত এক শাস্তি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নে অবস্থিত এই বিদ্যালয়টি। যেখানে ছাত্র/ছাত্রীরা পড়া না পারলেই তাদের দ্বারা চাপানো হচ্ছে টিউবয়েল। বিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হবার আগে টিউবয়েলের হাতল লাগান এবং শেষে তা খুলে নিয়ে যাওয়া হয়। আর এসব করাচ্ছেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির হোসেন। তার এধরনের কর্মকান্ডে হতাশ ছাত্র/ছাত্রী, অভিবাবক ও স্থানীয় সচেতন মহল। এছাড়াও প্রধান শিক্ষককের অবহেলার কারণে বিদ্যালয়টির বিভিন্ন শ্রেণি কক্ষে উইপোকা মাটি ঠেলে স্তূপ করে রেখেছে এবং একটি শ্রেণি কক্ষে গরু বাঁধার দৃশ্যও রয়েছে। নাম প্রকাশ না করা সত্ত্বে বিদ্যালয়ের চতূর্থ শ্রেণির কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, আমরা বিদ্যালয়ে পড়া না পারলে হেড স্যার আমাদের দিয়ে বিদ্যালয়ের নতুন টিউবয়েলটিতে বালু উঠার কারণে তা চেপে বালু পরিস্কার করান। যারা পড়া না পারে তাদের দিয়ে ১ শত বার করে টিউবয়েল চাপানো হয়। কয়েকজন অভিবাবক বলেন, প্রায় সময়ই দেখতে পাই স্কুলের ছাত্ররা টিউবয়েল চাপছে। আসলে এটা নাকি বিদ্যালয়ে পড়া না পারলে প্রধান শিক্ষক এই শাস্তি দেন তাদের। এটা সত্যিই অদ্ভূত শাস্তি। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল মোতালেব বলেন, আমি বিষয়টি শুনে প্রধান শিক্ষককে জানালে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা মজা করে টিউবয়েল চাপছে। বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক নাসির হোসেন বলেন, এই শাস্তির বিষয়ে আমার জানা নেই। আর আপনাদের কাছে যদি কেউ অভিযোগ করে থাকেন তাহলে আপনারা উপরস্থ কর্মকর্তাকে জানান।এবিষয়ে উপজেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফ হোসেন বলেন, এব্যাপারে আমার জানা নেই আপনাদের কাছ থেকে এখন জেনেছি, বিদ্যালয় খোলা তারিখে আমি ঘটনাস্থল তদন্ত করবো।

 

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00