‘সূর্য ডুবার আগেই সা’দকে দিল্লি যেতে হবে’

‘সূর্য ডুবার আগেই সা’দকে দিল্লি যেতে হবে’
bodybanner 00

 

বিশ্ব তাবলিগ জামাতের আমির ও দিল্লির মুরুব্বি মাওলানা সা’দ কান্ধলভীকে সূর্য ডুবার আগেই ঢাকা ছেড়ে দিল্লি পাঠানোর জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। বৃহস্পতিবার বিকেলে সংগঠনের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ফজলুল করিম কাসেমি এ আহ্বান জানান। এ সময় সকাল থেকে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেটে চলা মাওলানা সা’দবিরোধী বিক্ষোভ কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণা করেন তিনি।
‘সূর্য ডুবার আগেই সা’দকে দিল্লি যেতে হবে’

মাওলানা ফজলুল করিম হুঁশিয়ারি দেন, ‘দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে মাওলানা সা’দকে আজ (বৃহস্পতিবার) সূর্য ডুবার আগেই দিল্লি ফেরত পাঠাতে হবে। তা না হলে আগামীকাল শুক্রবার থেকে দেশে গাড়ি-ঘোড়া চলবে না, সব বন্ধ করে দেওয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘মাওলানা সা’দ নিজেকে দাওয়াতুল তাবলিগের আমির ঘোষণা করেছেন, যা সম্পূর্ণ অবৈধ। তিনি কখনোই উপযুক্ত আমির হতে পারেন না। উনি কোরআন ও হাদিসের যে অপব্যাখ্যা করেছেন, তা থেকে তাকে ফিরে আসতে হবে।’

এই হেফাজত নেতা আরো বলেন, ‘সরকারকে আমরা বলেছিলাম- মাওলানা সা’দ যেন বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে না পারে। সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে আমাদের আশ্বস্ত করা হয়েছিল। কিন্তু, দুঃখের বিষয় গতকাল বুধবার একটি কুচক্রী মহলের ব্যবস্থাপনায় তাকে বাংলাদেশে আনা হয়েছে। তিনি এখন কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করছেন। দেশের শান্তি নষ্ট করতেই এগুলো করা হচ্ছে।’

 

মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আলেম-ওলামাদের শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থানে আমরা নিরাপত্তা দিয়েছি। কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইজতেমায় মাওলানা সা’দের থাকা না থাকার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন।

আগামী ১২ জানুয়ারি ও ১৯ জানুয়ারি দু’দফায় তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দফায় ১৪ জানুয়ারি ও দ্বিতীয় দফায় ২১ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাত হবে।

ইজতেমার ‘শান্তি ও নিরাপত্তার স্বার্থে’ গত ৭ জানুয়ারি যাত্রাবাড়ীতে জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদানিয়ায় তাবলিগের শুরা সদস্য ও আলেমদের বৈঠক হয়। সেখানে এবারের ইজতেমায় মাওলানা সা’দ এর না আসার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

 

‘তাবলিগ করা ছাড়া কেউ বেহেশতে যেতে পারবে না’ মূলত মাওলানা সা’দের এমন বক্তব্যের জের ধরে বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়।

এরই মধ্যে আমিরের পদ থেকে মাওলানা মুহাম্মদ সা’দকে সরিয়ে দেওয়া হলে বিশ্ব ইজতেমা বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় স্থানান্তরের হুমকি দিয়েছে মালয়েশিয়া তাবলিগের শুরা কর্তৃপক্ষ।

বিক্ষোভের মধ্যেই বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে গতকাল বুধবার বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান মাওলানা সা’দ।

মাওলানা সা’দের ভিসা বাতিল ও বাংলাদেশে আসা ঠেকাতে বিরোধীরা বুধবার বিকেল থেকে বিমানবন্দর ও ডেমরা এলাকায় বিক্ষোভ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবারও রাজধানীতে বিক্ষোভ হয়। এতে তীব্র যানজটে জনজীবনে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো নাভিঃশ্বাস নেমে আসে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00