ব্রেকিং নিউজঃ

সুস্থ থাকার উপায়

bodybanner 00

শীতে প্রায় অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। তবে আপনার আশপাশেই এমন অনেকে আছেন, যারা সাধারণত খুব বেশি অসুখে আক্রান্ত হন না। কর্মক্ষেত্রে দেখা যায় আপনি হয়তো সিক লিভ সব শেষ করে ফেলেছেন, অথচ আপনার সহকর্মীর খুব কমই ছুটির প্রয়োজন হয়। যদিও আমরা জানি, মানুষের সব সময় সুস্থ থাকার ব্যাপারে জিনের ভূমিকা আছে। কিন্তু লাইফ স্টাইলও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। এটি অন্যের সঙ্গে আপনার পার্থক্য গড়ে তোলে। যারা সব সময় সুস্থ থাকে, তাদের লাইফ স্টাইল কেমন চলুন দেখি :

তারা ইতিবাচক চিন্তা করে : যারা সুস্থ থাকে, খেয়াল করে দেখবেন, তারা ইতিবাচক চিন্তা করে। এটি শক্তিশালী দেহের ভীত। আপনি যদি মনে করেন, এই ঠান্ডায় কফে আক্রান্ত কোনো লোকের পাশে বসলে আপনারও কফ হবে, দেখবেন তাই ঘটেছে। তাই সব সময় ইতিবাচক চিন্তা করুন। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা হলেও বাড়বে। গবেষণায় দেখা গেছে যারা ইতিবাচক চিন্তা করে, তাদের অসুস্থ হওয়ার আশঙ্কা কম।

তারা বেশি পানি পান করে : পর্যাপ্ত পানি পান করে সুস্থ থাকা সম্ভব। এক্ষেত্রে দিনে ৮ লিটার পানি পান করতে হবে, এমন কোনো নিয়ম নেই। একটা উপায় আছে পানি সঠিক পরিমাণে পান করার। আপনার শরীরের প্রতি ২০ কেজি ওজনের বিপরীতে ১ লিটার পানি পান করতে পারেন। এর অর্থ হলো- যদি ৬০ কেজি ওজন হয়, তাহলে দিনে আপনার ৩ লিটার পানি পানই যথেষ্ট। আরেকটি বিষয় মনে রাখতে হবে, শুধু বেশি পানি পান করলেই হবে না, বরং উষ্ণ পানি বেশি পান করুন। এতে ঠান্ডা লাগা, সাইনাসের সমস্যা, হজমের সমস্যা দূর হবে।

তারা পর্যাপ্ত  ঘুমায় : প্রতিদিন একজন মানুষের পর্যাপ্ত ঘুম জরুরি। ঘুমের ব্যাঘাত হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। আর হ্যাঁ, সুস্থ থাকার অন্যতম শর্ত হলো হাসি-খুশি থাকা। এরপর তারা পর্যাপ্ত ভিটামিন সি খায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি জরুরি। একজন মানুষের প্রতিদিন অন্তত ৬০ থেকে ৯০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি প্রয়োজন। শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যোগায় সবুজ শাক সবজি। তাই এখন থেকে বেশি করে সবুজ শাক খান।

তারা মেডিটেশন করে : টয়লেট সেরে সব সময় হাত ভালো করে সাবান দিয়ে ধুতে হবে। এছাড়া যে কোনো অপরিষ্কার জিনিস ধরে ভালো করে হাত ধোয়া আপনাকে সব সময় সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে। গবেষণায় জানা গেছে, তৃপ্তিদায়ক যৌন জীবন মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই  সুন্দর যৌনতাও প্রয়োজন। আরো প্রয়োজন মানসিক চাপ থেকে মুক্তি। এর অন্যতম উপায়, সবার সাথে সামাজিকতা বজায় রাখা। যারা বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেয়, বেড়াতে যায় তারা বেশিরভাগই সুস্থ জীবন যাপন করে। বর্তমানের স্ট্রেসফুল জীবনে মেডিটেশন বা ধ্যান জরুরি। তাই সুস্থ থাকতে হলে আপনাকেও ধ্যান করতে হবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00