ব্রেকিং নিউজঃ

শেষ ওভারে পারলেন না মুস্তাফিজ

শেষ ওভারে পারলেন না মুস্তাফিজ
bodybanner 00

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে প্রথম ম্যাচের শেষ ওভারে রান আটকাতে পারলেন না বাংলাদেশের বামহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। প্রথম তিন বল ডট দিয়ে শুরু করলেও ওভারের চতুর্থ বলে ছয় খেয়ে বসেন মুস্তাফিজ। ২ বলে ১ রান। এমন সমীকরণ দাঁড়াতে তা আর আটকানো যায়নি। এক বল বাকি থাকতে এক উইকেটে জয় পায় চেন্নাই সুপার কিংস।

এরআগে নিজের প্রথম তিন ওভার খুব ভালো বল করতে পারেননি মুস্তাফিজ। ২৯ রানের খরচায় নেন এক উইকেট। তবে মুস্তাফিজের দল মুম্বাই জয়ের পথেই ছিল। কিন্তু ডোরাইন ব্রাভো একাই দলকে টেনে নিয়ে যান। তিনি ৩০ বলে ৬৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন।

তবে পরাজয়ের দায় যতটা না মুস্তাফিজের তার চেয়ে বেশি বুমরাহ এবং ম্যাকক্লেনেঘানের। দু’জন ম্যাচের ১৮ এবং ১৯ তম ওভারে খরুচে ওভার করলে শেষ ওভারের জন্য রান থাকে মাত্র ৭। ডেটথ ওভারের বোলার খ্যাত বুমরাহ ১৯ তম ওভারে এসে ২০ রান দিলে চেন্নাইয়ের ম্যাচ জয়ের আর বাকি থাকে না। কারণ এক প্রান্ত থেকে উইকেট পড়ে গেলেও তখনো ব্যাটে ছিলেন কেদার যাদব। তিনি জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন।

এরআগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান তোলে। দলের হয়ে ইশান কিশান এবং সূর্যকুমার সমান ২৯ বল খেলে যথাক্রমে ৪০ ও ৪৩ রান করেন। এছাড়া ক্রুনাল পান্ডে খেলেন ২২ বলে ৪১ রানের এক  ঝড়ো ইনিংস।

জবাবে এক উইকেটের জয় পায় চেন্নাই। ধনীর দলের হয়ে একমাত্র ব্রাভো ছাড়া কেউ  দাঁড়াতে পারেননি। ব্রাভোর ৬৮ রানের পাশে ২২ বলে ২৪ রান করে ম্যাচ জেতান যাদব। এছাড়া ১৯ বলে ২২ রানের এক ইনিংস খেলেন রাইডু। মুম্বাইয়ের হয়ে হার্দিক পান্ডিয়া ও মারকান্ডে দারুণ বোলিং করেন। দু’জনেই ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২৩ ও ২৪ রান দিয়ে ৩টি করে উইকেট নেন।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00