শীতে শিশুর যত্নে প্রসাধনীর টুকিটাকি

শীতে শিশুর যত্নে প্রসাধনীর টুকিটাকি
bodybanner 00

অন্য মৌসুমের চেয়ে এই শীত ঋতু হয় অনেকটাই আলাদা। তাই নিতে হয় আমাদের একটু বাড়তি প্রস্ততি। তার সাথে বাড়তি যত্ন নিতে হবে শিশুদের। শীতে প্রকৃতিতে যে পরিবর্তন আসে তার সঙ্গে মানিয়ে নিতে শিশুর একটু কষ্ট হয়। তাই বাবা-মায়ের শিশুর প্রতি বেশি সতর্ক থাকতে হবে। শীত বুঝে পাতলা বা মোটা কাপড় পরাতে হবে। শিশুরা সাধারণত সংবেদনশীল ও নরম ত্বকের অধিকারী। এই সময় শিশুদের ত্বক বেশি রুক্ষ হয়ে যায়। শীতে শিশুর কোমল ত্বকের যত্ন নিতে অবশ্যই ভালো মানের লোশন বা ক্রিম লাগাতে হবে। আপনার শিশুকে পর্যাপ্ত পুষ্টি এবং তার চাহিদা অনুযায়ী উপযুক্ত পণ্য সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। তাই শিশুর যত্নের জন্য কিছু প্রসাধনী কথা জানাবো।

হেয়ার অয়েল: হেয়ার অয়েল-এ আছে চুল বৃদ্ধি ও চুলের শক্তি যোগাতে প্রয়োজনীয় উপাদান। হেয়ার অয়েল আপনার শিশুর মাথার ত্বকের সুরক্ষা করবে এবং খুশকি ও ফুসকুড়ি থেকে রক্ষা করবে। বিভিন্ন তেলে আছে ভিন্ন ভিন্ন উপাদান ও গুণাগুণ জৈব ফলের নির্যাস, ক্যমোমিল, জৈব পুস্প বিশেষ, শিয়া বাটার, সানফ্লাওয়ার তেল ও ঘৃত কুমারী, এ আছে ভিটামিন ই সমৃদ্ধ বাদাম তেল। এমন  তেল ব্যবহার করুন।

বডি অয়েল: বডি অয়েল ম্যাসেজ শিশুর হাড়কে মজবুত ও শক্তিশালী করে। বডি অয়েল ম্যাসেজ গরমের সময় একটু কষ্টের ব্যাপার হয়ে যায়। কিন্তু শীতকালে শিশুকে অয়েল ম্যাসেজ অত্যন্ত জরুরী। কারণ অয়েল ম্যাসেজ করার আধা ঘণ্টা পর যদি শিশুকে গোসল করানো হয় তাহলে ঠান্ডাটা গায়ে বসে না আর ঠান্ডাও কম লাগে। বিভিন্ন চর্মরোগ প্রতিরোধ ও ত্বকের শুষ্কতা, রুক্ষতাকে বিদায় করে শিশুর কোমল ত্বককে আরো মসৃণ ও নরম করে তোলে। শিশুর ত্বক উজ্জ্বল করে। এমন কিছু বডি অয়েল-এর নাম দেওয়া হল।

বেবি শ্যাম্পু: শিশুদের গোসল করার সময়টা তাদের কাছে খুব আনন্দের সময়। প্রত্যেকটা বাচ্চা পানির সংস্পর্শে এসে পানি ও গোসল দুটোই সমানভাবে উপভোগ করতে চায়। কিন্তু এই সময় তার কোমল চোখের কান্নাকাটি কখনোই আমাদের কাম্য নয়। তাই বেবি শ্যাম্পু নিয়ে এসেছে ‘No More Tears’ ফর্মুলা। এই শ্যাম্পু ব্যবহারে শিশুর চোখ জ্বালা করবে না। বেবি শ্যাম্পু কম ক্ষার যুক্ত যার জন্য শিশুর মাথার ত্বকে আলতো করে পরিষ্কার করে এবং চুলকে নরম, সুস্থ ও সিল্কি করে। এমন কিছু শ্যাম্পুর নাম দেওয়া হল।

বেবি সোপ বা বেবি ওয়াশ: বডি সোপ হয়ে থাকে সাধারণত ২ ধরনের- একটি বার আকারে এবং অন্যটি তরল। আমি বলব বার সোপ-এর চেয়ে শিশুদের বডি ওয়াশ-টা ব্যবহার অনেকটা সুবিধাজনক। এগুলো কম ক্ষার যুক্ত থাকে এবং অধিক ফেনা করে, যাতে সহজে ত্বকের ময়লা পরিষ্কার হয়ে যায়। বেবি সোপ বা বেবি ওয়াশ-গুলো কখনোই তীব্র গন্ধযুক্ত হয় না, এগুলো সাধারণত মিষ্টি গন্ধযুক্ত হয়। এতে কোনো রকম এলার্জি জাতীয় প্রতিক্রিয়া ছাড়াই শিশুর ত্বকের সুরক্ষা করে। এমন কিছু বডি সোপ বা ওয়াশ ব্যবহার করুন।

বেবি ক্রিম: বেবি ক্রিম শিশুদের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। আমরা অনেকেই বডি লোশন-টাই শিশুর মুখে দিয়ে থাকি কিন্তু এটা কখনই ঠিক না। ক্রিমগুলো শুধু মাত্র শিশুদের মুখের কথা চিন্তা করে বানানো হয়ে থাকে। অনেক সময় দেখা যায় শীতকালে শিশুদের গাল ফেঁটে যায়। শিশুর মুখের ত্বক এতটাই কোমল যে শীতের রুক্ষতাকে সহ্য করতে না পেরে, খুব তাড়াতাড়ি ত্বক ফেঁটে যায়। তাই শিশুর মুখের ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করতে আছে বিভিন্ন রকম ক্রিম। এসব ব্যবহার করাই উচিত।

বেবি লোশন: বডি লোশন শীতকালে শীতের রুক্ষতাকে বিদায় জানিয়ে শিশুর ত্বকে লাবন্যময় ও মসৃণ করে তোলে। তাই,শীতে শিশুর বডি লোশন লাগানোটা বড়দের মতই ততটাই গুরুত্বপূর্ণ। বডি লোশন শিশুর ত্বককে আরো কোমল, নরম, ও দীপ্তিময় করে তোলে। লোশনে আছে কিছু ভিন্নতা যেমন -মিল্ক, বাটার, নেচার, স্কিন টাইপ ইত্যদি। এর মধ্যে আপনার বেবির জন্য সঠিক লোশন-টি বাছাই করে নিতে হবে।

আশা করি এই শীতে আপনার শিশুর জন্য শীত প্রসাধনী ব্যবহার নিয়ে আর কোনো অসুবিধা হবে না।

 

 

Facebook Comments

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00