রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করতে পারেন যারা

রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করতে পারেন যারা
bodybanner 00

 

বর্তমান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২৩ এপ্রিল। এজন্য চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের নাগরিকরা কিছু শর্ত পূরণ করতে পারলেই রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করতে পারবেন। তবে এই পদের নির্বাচনের জন্য প্রস্তাবক ও সমর্থক একজন অথবা দুই জন এমপি হতে হবে। দণ্ডিত ব্যক্তি রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করতে পারবেন না।

রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন করতে পারেন যারা

সংবিধানের ৪৮ অনুচ্ছেদের ১ ধারা অনুযায়ী, বাংলাদেশের একজন রাষ্ট্রপতি থাকবেন, যিনি আইন অনুযায়ী সংসদ-সদস্য দ্বারা নির্বাচিত হবেন। ২ ধারা অনুযায়ী, রাষ্ট্রপ্রধানরূপে রাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রের অন্য সব ব্যক্তির ঊর্ধ্বে স্থান লাভ করবেন এবং এই সংবিধান ও অন্য কোনো আইনের দ্বারা তাকে প্রদত্ত ও তার ওপর অর্পিত সব ক্ষমতা প্রয়োগ ও কর্তব্য পালন করবেন।

এই অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, কেউ যদি পয়ত্রিশ বৎসরের কম বয়স্ক হন তাহলে তিনি প্রার্থী হতে পারবেন না। সংসদ-সদস্য নির্বাচিত হওয়ার যোগ্য না হন অথবা কখনও এই সংবিধানের অধীন অভিশংসন দ্বারা রাষ্ট্রপতির পদ হতে অপসারিত হয়ে থাকেন তাহলে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করতে পারবেন না।

সংবিধানের এই অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, সংসদ সদস্য নির্বাচনের অযোগ্যরা রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করতে পারবেন না। আর কে কে সংসদ সদস্য নির্বাচন করতে পারবেন না তা সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা হয়েছে। এই অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি বাংলাদেশের নাগরিক হলে এবং তার বয়স পঁচিশ বছর পূর্ণ হলে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার এবং সংসদ-সদস্য থাকবার যোগ্য হবেন।

কোনো ব্যক্তি সংসদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার এবং সংসদ-সদস্য থাকার যোগ্য হবেন না, যদি কোনো উপযুক্ত আদালত তাকে অপ্রকৃতিস্থ বলে ঘোষণা করেন; তিনি দেউলিয়া ঘোষিত হওয়ার পর দায় হতে অব্যাহতি লাভ না করে থাকেন; তিনি কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করেন কিংবা কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের প্রতি আনুগত্য স্বীকার করেন; তিনি নৈতিক স্খলনজনিত কোনো ফৌজদারী অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়ে দুই বৎসরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন এবং তার মুক্তিলাভের পর পাঁচ বৎসরকাল অতিবাহিত না হয়ে থাকে; তিনি ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ যোগসাজশকারী (বিশেষ ট্রাইব্যুনাল) আদেশের অধীন যে কোনো অপরাধের জন্য দণ্ডিত হয়ে থাকেন; আইনের দ্বারা পদাধিকারীকে অযোগ্য ঘোষণা করেনি, এমন পদ ব্যতীত তিনি প্রজাতন্ত্রের কর্মে কোনো লাভজনক পদে অধিষ্ঠিত থাকেন; অথবা তিনি কোনো আইনের দ্বারা বা অধীন অনুরূপ নির্বাচনের জন্য অযোগ্য হন। তবে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপ-মন্ত্রী হবার কারণে প্রজাতন্ত্রের কর্মে কোনো লাভজনক পদে অধিষ্ঠিত বলে গণ্য হবেন না।

সংবিধানের ৩ (২ক) এই অনুচ্ছেদের (২) দফার (গ) উপ-দফা তে যাই থাকুক না কেন, কোনো ব্যক্তি জন্মসূত্রে বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে কোনো বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করলে এবং পরবর্তীতে ওই ব্যক্তি- দ্বৈত নাগরিকত্ব গ্রহণের ক্ষেত্রে, বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব ত্যাগ করলে; কিংবা অন্য ক্ষেত্রে, পুনরায় বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করলে- এই অনুচ্ছেদের উদ্দেশ্য সাধনকল্পে তিনি বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করেছেন বলে গণ্য হবেন না।

জানা গেছে, রাষ্ট্রপতি পদের জন্য একাধিক প্রার্থী থাকলে জাতীয় সংসদের অধিবেশন কক্ষে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আসন্ন নির্বাচনটি বেলা ২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে ভোটার ৩৪৮ জন। সংসদ সদস্য ৩৫০ জন হলেও মৃত্যুজনিত কারণে দুটি আসন শুন্য রয়েছে। এ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীও ভোট দেবেন।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00