ব্রেকিং নিউজঃ

বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল–ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি

বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল–ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি
bodybanner 00

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলে জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৫ এপ্রিল রবিবার বিকেলে জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি। তিনি বলেন, কয়েকদিন যাবত বাংলাদেশে কোটা সংস্কারের ব্যাপারে আন্দোলন করা হচ্ছে। সেই আন্দোলনকারীদের বলা হয়েছে বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা হবে। তার পরেও কেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি’র বাসা বাংচুর করা হল। ছাত্র লীগের নাম ধারী হামলাকারী এরা কারা। যে দেশে হাজার বছর আগেও পন্ডিত শিক্ষিত মানুষদের সম্মান করা হয়। এখনও শিক্ষকদের সম্মান ও শ্রদ্ধা করা হয়। সেই শিক্ষকের বাসা হামলা করা হয়েছে। মোবাইল ফোনে তারেক জিয়া কোটা সংস্কার আন্দোলন কারীদের উসকানি দিয়েছেন। কোটা সংস্কার আন্দোলনকে যারা বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছিলো। আবার এটাকে রাজনীতি করার চেষ্টাও করেছিলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হেফাজত, জামাত, জঙ্গীদের নাশকতা মোকাবেলা করেছে ও বিএনপি’র তিনমাসের হরতাল মোকাবেলা করেছেন। ঠিক তেমনি কোটা সংস্কারের নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসা ভাংচুরকারীদেরও মোকাবেল করেছেন। এগুলোই হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফলতা। ছাত্রলীগকে আরো সুসংগঠিত হতে হবে। যেকোন ধরনের পরিস্তিতির মোকাবিলা করতে হবে।

তিনি বিরোদী দলের নেতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, রিজভী আজকে এক বক্তব্যে বলেছেন, জেলহাজতে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না। তাকে মেরে ফেলার জন্য ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতার মা। সে রোহিঙ্গাদের দেশে আশ্রয় ও খাবার দিচ্ছে এবং চিকিৎসা সেবা প্রদান করেছেন। খালেদা জিয়া বাংলাদেশের একজন নাগরিক। যার ফলে খালেদা জিয়া চিকিৎসা সেবা পাচ্ছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের মাধ্যমে তার চিকিৎসা করা হচ্ছে। জনাব রিজভী আপনারা দাবি করেন খালেদা দেশের তিনবার প্রধান মন্ত্রী ছিলেন। আমরা জানি তিনি দুর্নীতির সাথে ছিলো। তার সন্তানরা বাংলাদেশ থেকে শত শত কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। ওই টাকা অবৈধ টাকা। সেই টাকা বৈধতা নাই বলে পূণরায় বাংলাদেশে ফেরত এসেছে। খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া আরবদেশে এক পিন্সের সাথে ব্যবসা করে। সেই ব্যবসা থেকে প্রতিমাসে তারা একটা লভ্যাংশ পেয়ে থাকে।

তিনি দেশের উন্নয়ন সম্পর্কে বলেন, বাংলাদেশের রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎ, শিক্ষা সাহিত্যসহ সকল বিষয়ের উন্নয়ন হয়েছে। বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়ন দেশে পরিণত হয়েছে। সেই উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবার দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি রাজনীতি বিশ্লেষক সুভাষ সিংহ রায়, সদর আসনের এমপি ছানোয়ার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান খান ফারুক, সহ-সভাপতি সামসুল হক, সাধারণ সম্পাদক জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আশরাফউজ্জামান স্মৃতি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র সাহা,কালিহাতী আসনের এমপি সোহেল হাজারী,বাসাইল-সখিপুরের এমপি অনুপম শাজাহান জয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক শাফিউল আলম মুকুল, তানভীরুল ইসলাম হিমেল, রনি আহমেদ ও জনি আহমেদ।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00