ফোরজি সেবার মান নিয়ে প্রশ্ন

ফোরজি সেবার মান নিয়ে প্রশ্ন
bodybanner 00

দেশে চালু হতে যাওয়া ফোরজি সেবার মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে ফোরজি নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করতে মোবাইল অপারেটরদের কমপক্ষে ৬০ মেগাহার্জ তরঙ্গ প্রয়োজন। কিন্তু তাদের তরঙ্গ রয়েছে সর্বোচ্চ ৩৭ মেগাহার্জ। এই অল্প মেগাহার্জ তরঙ্গ দিয়ে বিপুল জনগোষ্ঠিকে দ্রুতগতির ফোরজি পরিষেবা দেয়া সম্ভব নয়।
দেশে ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে ফোরজি চালু হচ্ছে। এজন্য গতকাল ফোরজির তরঙ্গ নিলামের মাধ্যমে বিক্রির আয়োজন করে বিটিআরসি। এই নিলামে গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক অংশ নেয়। গ্রামীণফোন ১৮০০ ব্যান্ডের ৫ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনেছে নিলাম থেকে। তাদের এখন তরঙ্গের পরিমান বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৭ মেগাহার্জ। অন্যদিকে বাংলালিংক আর বাংলালিংক ১৮০০ ব্যান্ডের ৫.৬ মেগাহার্টজ ও ২১০০ ব্যান্ডের ৫ মেগাহার্টজ তরঙ্গ কিনেছে। এতে বাংলালিংকের তরঙ্গের পরিমাণ দাড়ালো ৩০.৬ মেগাহার্টজ। তরঙ্গের প্রতিযোগিতায় গ্রামীণফোন রবির চাইতে ০.৬ মেগাহার্টজ বেশি রইলো। বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘এতদিন ধরে রবি ৩৬.৪ মেগাহার্টজ দিয়ে যে থ্রিজি সেবা গ্রাহকদের দিয়েছে সেটার মান কি থ্রিজি পর্যায়ে ছিল? এই পরিমাণ তরঙ্গ ইন্টারনেটের গতি ছিল সর্বোচ্চ ৫ এমবিপিএস। ফোরজির জন্য গতি নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ এমবিপিএস। যেখানে এতদিন এই তরঙ্গ দিয়ে গড়ে ৬ এমবিপিএস গতিই আনা গেল না সেখানে একই পরিমাণ তরঙ্গ দিয়ে বর্তমান বিটিএস ব্যবহার করে কিভাবে ইন্টারনেটের মান বাড়াবে ফোরজি?’

মহিউদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, তরঙ্গ বিক্রি করে সরকার হয়তোবা ৫৪২৩ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করেছে। যা কিনা জনগণের কাছ থেকেই পরোক্ষভাবে আদায় করা হয়েছে। তারপরও নিয়ন্ত্রণ কমিশন ও অপারেটররা গ্রাহকদের মিথ্যা তথ্য ও আশ্বাস দিচ্ছে যা অত্যন্ত দুঃখ ও লজ্জাজনক। কারণ ২০এমবিপিএস গতি পেয়ে প্রয়োজন ৬০ মেগাহার্টজ তরঙ্গের। মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, বিশ্বে ১৮০ টি দেশে ফোরজি চালু আছে। তাতে গড় গতি ১৬.৬ এমবিপিএস। সর্বচাইতে গতি বেশি আছে সিঙ্গাপুর ও দক্ষিণ কোরিয়ায় যথাক্রমে ৪৬.৬৪ ও ৪৫.৮৫ এমবিপিএস। এছাড়া নরওয়ে হাঙ্গেরিতে ৪২ এমবিপিএস। বাংলাদেশের প্রান্তিক পর্যায়ে ইন্টারনেটের বর্তমান গতি ২.১ এমবিপিএস বা আরও কম। আরও সমস্যার মধ্যে ফোরজি সম্বলিত হ্যান্ডসেটের অপর্যাপ্ততা, ফোরজি সিম পরিবর্তন, বিটিএস তৈরি সহ অসংখ্য সমস্যার নিরসন না করেই ২১

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00