ব্রেকিং নিউজঃ

প্রতিদিন তিনটি খেজুর খেলে কী হয়?

প্রতিদিন তিনটি খেজুর খেলে কী হয়?
bodybanner 00

মজান মাস বাদ দিলে আমাদের দেশে খেজুর খাওয়া একটু কমই হয়ে থাকে। রোজা রাখার সঙ্গে খেজুরের একটি সম্পর্ক রয়েছে বলে বছরের অন্যান্য সময়ে আমরা অনেকেই খেজুর খাই না।

কিন্তু অসাধারণ পুষ্টিগুণে ভরপুর এই খেজুর আমাদের শারীরিক নানা সমস্যা দূর করতে বিশেষভাবে কার্যকরী। প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় তিনটি খেজুর রাখলে শরীরের কিছু পরিবর্তন ঘটে। স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডেভিডউলফ ডটকম তুলে ধরেছে সেই পরিবর্তনগুলো।

প্যারিসে প্রথমবারের মতো নগ্ন নারীপুরুষ পরিদর্শকদের জন্য চালু হয়েছে একটি জাদুঘর। এর নাম প্যালেইস ডি টোকিও। এই জাদুঘর পরিদর্শন করতে হলে পরিদর্শককে অবশ্যই একেবারে নগ্ন হয়ে গেট দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। শনিবার এমন পরিদর্শকদের জন্য এর গেটগুলো খুলে দেয়া হয়। এদিন এ জাদুঘর পরিদর্শন করেন ১৬০ জন পরিদর্শক। এর মধ্যে আছেন নারী ও পুরুষ। সেখানে যেসব চিত্রকর্ম প্রদর্শন করা হয়েছিল তা বিক্রি হয়ে গেছে দু’দিনের মধ্যে। প্যারিস প্লাস ১৬তম জেলায় এই জাদুঘরটি অবস্থিত। প্রকৃতিপ্রেমীদের জন্য এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্যারিসের পূর্বদিকে বোইস ডি ভিনসেনস পার্ককে গত বছর শহরে নগ্ন মানুষদের এলাকা বলে ঘোষণা দেয়া হয়। সামনেই সেখানে গ্রীষ্মকাল। এ উপলক্ষ্যে ওই পার্কটি আবার খুলে দেয়া হয়েছে। কিন্তু নগ্ন নরনারীদের জন্য জাদুঘরকে বিপ্লবী সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। তারা বলছেন, বিশ্বের সংস্কৃতির রাজধানীগুলোর অন্যতম হবে এটি। প্যারিস ন্যাচারিস্টস এসোসিয়েশনের যোগাযোগ বিষয়ক পরিচালক জুলিয়েন ক্লাউডি-পেনেগ্রি বলেছেন, প্রাকৃতিক জীবন হলো নগ্ন। সংস্কৃতি হলো আমাদের নিত্যদিনের অংশ। তাই এই সংস্কৃতির মধ্য দিয়ে সেই প্রকৃতিকে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে মানুষের মানসিকতা পাল্টে গেছে। প্রকৃতিপ্রেমীরা অতীতের সব বাধা, প্রতিবন্ধকতাকে অতিক্রম করে এগুচ্ছেন। উল্লেখ্য, এই সংগঠনের মতে, শুধু প্যারিসেই তাদের অনুসারীর সংখ্যা ৮৮ হাজার। পুরো ফ্রান্সে এমন প্রকৃতিপ্রেমের চর্চা করেন ২৬ লাখ মানুষ। উল্লেখ্য, ওই জাদুঘরটির পাশেই এ বছরের শেষের দিকে প্রতিষ্ঠা করার পরিকল্পনা রয়েছে নগ্ন মানুষদের জন্য একটি নাইটক্লাব।

হজমশক্তি ভালো হয়

খেজুরে দ্রবণীয় তন্তু রয়েছে, যা হজমশক্তির উন্নতি ঘটিয়ে স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে। একই সঙ্গে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয় খেজুর। এতে পটাশিয়াম থাকায় তা বদহজম এবং ডায়রিয়া থেকেও রক্ষা করে। আসলে খেজুর আমাদের পাকস্থলীর মধ্যকার ভালো ব্যাকটেরিয়াগুলোকে শক্তির জোগান দেয় বলেই এমনটি হয়ে থাকে।

রক্তস্বল্পতা রোধ

বেশিরভাগ মানুষই রক্তস্বল্পতায় ভোগেন। এর চিকিৎসায় আয়রনের একটি চমৎকার উৎস হতে পারে খেজুর। ক্লান্তি দূর করতেও ভূমিকা রাখে খেজুর।

হাড়, রক্ত এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

খেজুরে ম্যাগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ এবং সেলেনিয়াম রয়েছে। এদের মধ্যে সেলেনিয়াম ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। অন্য উপাদানগুলো হাড়কে মজবুত এবং রক্ত ভালো রাখতে সাহায্য করে।

শক্তি বাড়ায়

খেজুরে প্রাকৃতিক চিনি বিশেষ করে গ্লুকোজ, সুক্রোজ, ফ্রুক্টোজ বিদ্যমান রয়েছে। এই উপাদানগুলো শক্তি বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কাজেই শক্তি বাড়াতে বিকেলের নাস্তায় খেজুর খেতেই পারেন।

হার্ট ভালো রাখে

কোলেস্টরল হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বাড়াতে সাহায্য করে। খেজুরে পটাশিয়াম বিদ্যমান থাকায় তা খারাপ কোলেস্টরলের পরিমাণ কমিয়ে আনে। এর ফলে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিও কমে যায়। কাজেই স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রতিদিনের ডায়েটে তিনটি খেজুর রাখতেই পারেন।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00