নিয়ামতপুরে কিশোর আকমল ১৭ দিন যাবত নিখোঁজ

নিয়ামতপুরে কিশোর আকমল ১৭ দিন যাবত নিখোঁজ
bodybanner 00

স্টাফ রিপোর্টার, নওগাঁঃ

 বিকাশ চন্দ্র প্রাং,স্টাফ রিপোর্টার, নওগাঁঃ

১৭ দিন যাবত নিখোঁজ নওগাঁর নিয়ামতপুরের কিশোর আকমল হোসেন (১৫)। উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের কয়েশ গ্রামের জনৈক মকবুল হোসেনের পুত্র ও মান্দার বালুবাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্র সে। এ বিষয়ে গত ২৯জুন নিয়ামতপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে নিখোঁজ কিশোরের পিতা মকবুল হোসেন। থানায় সাধারণ ডায়েরী সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ জুন (শনিবার) বিকেল ৩টায় ফুটবল খেলার নাম করে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর সে বাড়িতে ফিরেনি। এ বিষয়ে নিখোঁজ কিশোরের পিতা মকবুল হোসেন বলেন, আমার কলিজার টুকরা, আমার বুকের ধন আজ প্রায় ১৭দিন যাবত নিখোঁজ রয়েছে। আমি, আমার স্ত্রী পাগলের মত যেখানে সেখানে খুঁজে বেড়াচ্ছি। কোথাও কোন খোঁজ পাচ্ছি না। থানায় গত ২৯ জুন একটি সাধারণ ডায়েরী করি। থানায় অভিযোগ দিয়েও ১১দিন পার হতে চলল। পুলিশও কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। পুলিশ আমার সন্তানকে খোঁজা বাদ দিয়ে আমাকেই খোঁজ করতে বলছেন। তিনি আরো বলেন, একটি নম্বর (০১৭৫১-৪৮৪৭৯০) থেকে আমাকে হুমকি দিয়ে টাকা দাবী করেছিল। পুলিশকে সেই নম্বরও দিয়েছি। তারপরেও কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। যে নম্বর থেকে আমাকে হুমকি দিয়েছিল, সেটি আমার ভগ্নিপতি চকদেওলা গ্রামের বিলাতির ছেলে কাদির (৩৮)। আমার বিশ্বাস কাদিরই আমার ছেলেকে লুকিয়ে রেখেছে। সে ইতোপূর্বে এ রকম তিনটি ঘটনা ঘটিয়েছিল। চাচতো ভাই উজিরের ছেলে সোহেল, আরেক চাচাতো ভাই লজিরের ছেলে আল-মামুন, খালাতো ভাই কাশেমের ছেলে মিঠুকেও অপহরণ করে লুকিয়ে রেখেছিল। নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ তোরিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমরা গুরুত্ব সহকারে দেখছি। আমারা আমাদের সাধ্য মত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ছেলের বাবা যে নম্বর আমাদের দিয়েছিল তা তাদের আত্মীয় স্বজনের মধ্যেই। ছেলে রাগ বা অভিমান করে বাড়ি থেকে কোথাও চলে গিয়েছে কি না তাও জানা যাচ্ছে না। তবে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00