ব্রেকিং নিউজঃ

নম্বর প্লেট হারিয়ে গেলে করণীয়

নম্বর প্লেট হারিয়ে গেলে করণীয়
bodybanner 00

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আজাদ। যাতায়াতের সুবিধার্তে মোটর বাইক ব্যবহার করেন। অফিসের নৈশভোজ সেরে রাত ১১টা পর্যন্ত নিজের কার্যালয়ে অবস্থান করেন। ক্লান্ত অবস্থায় বাসায় ফিরে গ্যারেজে বাইক রেখে নিজের কক্ষে শান্তির ঘুম দেন। সকালে অফিসে আসার সময় নিজের মোটর বাইকটি পরিস্কার করেন। বাইকটিকে যত্ন করে পরিষ্কার করার সময় বাইকের পেছনে নম্বর প্লেটটি দেখতে পান না। চিন্তায় পড়ে যান। কোথায় হারালো নম্বর প্লেটটি? নাকি অফিসের বাইরে থেকে চুরি হলো? চিন্তায় চিন্তায় অফিসে আসেন তিনি। আজাদের মতো আপনারও যদি বাইক বা গাড়ির নম্বর প্লেটটি হারিয়ে যায় সেক্ষেত্রে কি করণীয়? এ ব্যাপারে কথা হয় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটির (বিআরটিএ) ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উপ পরিচালক মোহাম্মদ মাসুদ আলমের সঙ্গে।
নম্বর প্লেট হারিয়ে গেলে করণীয়

তিনি  বলেন, সাধারণত গাড়িতে দুইটি নম্বর প্লেট থাকে। সামনের নম্বর প্লেটটিতে বেতার তরঙ্গ শনাক্ত করার ট্যাগ (আরএফআইডি) যুক্ত থাকে। আর পেছনেরটি রেট্রো-রিফ্লেকটিভ নম্বর প্লেট হয়ে থাকে। তাই একটি হারিয়ে গেলেও অন্যটি থাকে। নম্বর প্লেট হারানো বা চুরি হয়ে গেলে সর্বপ্রথম গাড়ির মালিককে নম্বর প্লেট হারানোর বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি(জিডি) করতে হবে। তারপর সংশ্লিষ্ট ট্রাফিক বিভাগ থেকে ট্রাফিক ক্লিয়ারেন্স নিতে হবে। তিনি আরো বলেন,  যেহেতু গাড়ির নম্বর প্লেট একটি স্পর্শকাতর বিষয়, তাই জিডি কপি নিয়ে গাড়ির মালিককে বিআরটিএ অফিসে আসতে হবে। সহকারি পরিচালকের বরাবরে পুনঃনম্বর প্লেট উত্তোলনের জন্য একটি দরখাস্ত করতে হবে। দরখাস্তটি জমা দেয়ার পর সহকারি পরিচালক গাড়ির ইঞ্জিন এবং চেসিস নাম্বার অনুসন্ধানের জন্য একজন মোটরযান পরিদর্শককে নির্দেশ দিবেন। তিনি গাড়িটি পরীক্ষা করে নাম্বারপ্লেটের টাকা জমা দেয়ার জন্য অনুমোদন দিতে সুপারিশ করবেন। এসময় গাড়ির নম্বর প্লেট হারানোর জিডি কপি এবং গাড়ির রেজিস্ট্রেশনের ফটোকপি বিআরটিএতে জমা দিতে হবে।

মো. মাসুদ আলম বলেন, টাকা জমা দেয়ার পর ব্যাংক রশিদটি পরবর্তী ডিজিটাল নম্বর প্লেট না হওয়া পর্যন্ত প্রমাণ হিসেবে ব্যবহৃত হবে। টাকা জমা দেয়ার দুই মাসের মধ্যে মোবাইল এসএমএস আসা স্বাপেক্ষে পুনরায় বিআরটিএতে এসে নম্বর প্লেট সংযোজন করে নিতে হবে। মোটরবাইকে একটি নম্বর প্লেট থাকে। মোটরবাইকের নম্বর প্লেট হারিয়ে গেলে করণীয় সম্পর্কে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের উপ-পরিচালক মো. মাসুদ আলম বলেন, মোটর সাইকেলের ব্যাপারটি আরো বেশি স্পর্শকাতর। যেহেতু আমাদের পাশ্ববর্তী দেশ থেকেই মোটরবাইক আমদানি করা হয়, সেহেতু কারো মোটর বাইকের নম্বর প্লেট হারিয়ে গেলে মোটর বাইকের মালিককে স্বশরীরে বিআরটিএতে আসতে হবে। গাড়ির মতোই সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। মোটরযান পরিদর্শক যদি মোটর বাইক পরীক্ষা করে সন্তুষ্ট হন, তাহলে মোটরবাইক মালিক পুনরায় নম্বর প্লেটটি নির্দিষ্ট টাকা জমা দিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আবার পেয়ে যাবেন।প্রসঙ্গত, মোটরসাইকেল এবং সিএনজি অটোরিকশার পুনরায় নম্বর প্লেট সংযোজন করতে ২২৬০ টাকা আর গাড়ির ক্ষেত্রে তা ৪৬২৮ টাকা।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00