ব্রেকিং নিউজঃ

দোহার নবাবগঞ্জের আঞ্চলিক মহাসড়কে পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রেখে চলছে রাস্তার কাজ

দোহার নবাবগঞ্জের আঞ্চলিক মহাসড়কে পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রেখে চলছে রাস্তার কাজ
bodybanner 00

 

আবুল হাশেম ফকির

ঢাকার দোহার নবাবগঞ্জের প্রানেকেন্দ্রে চলছে আরসিসি ঢালাই করে রাস্তার কাজ। নেই পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা। ফলে প্রতিনিয়ত সামন্য বৃষ্টিতেই রাস্তা তলিয়ে যায়। পানি চলেও গেলেও সড়কে কাদাকাদা হয়ে থাকে।

অব্যবস্থাপনায় চলছে রাস্তার কাজ, যানবাহন চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। পথচারীদের হেঁটে চলাও কস্টকর। ঢাকার দোহার নবাবগঞ্জ উপজেলার সদরে ঢাকা বান্দুরা ও কার্তিকপুর মাওয়া আঞ্চলিক সড়কের এটা নিয়মিত চিত্র। গত রবিবার দুপুরে দুই উপজেলা দোহারের থানার মোর চৌরাস্তা, নবাবগঞ্জের চৌরঙ্গীর মোর এলাকা ঘুরে দেখা যায় সড়ক তলিয়ে আছে। পানির কারনে কোথায় কোন খানাখন্দ বোঝা যাচ্ছেনা। হেঁটেও চলাচল করতে পারছেনা স্থানীয় লোকজন সহ স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীদের কস্টাও চরমে। স্থানীয় লোকজন জানান, সড়ক উন্নায়ন ও জনপথের অপরিকল্পিত ও অব্যবস্থাপনার কারনে সম্প্রতি এই সড়কে বেশ কয়েকটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। নবাবগঞ্জ পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র সুমন হোসেন বলে, প্রতিদিন স্কুলে হেঁটে যেতে হয় প্রায়ই রাস্তায় পানি জমে থাকে তারচেয়ে বেশী কস্ট কাদাকাদা রাস্তায় জুতা পেন্ট কাদায় ময়লা হয়ে যায়। দোহারের বেগম আয়েশা পাইলট গার্লস স্কুল এন্ড কলেজর অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী সানজীদা বলে সামন্য একটু রাস্তা পানি প্যককাদার জন্য অনেক ঘুরে আসতে হয়।

পাশ দিয়ে আসতে গেলে আবার যানবাহন চলার সময় নোংরা পানি কাদা ছিটে এসে স্কুল ড্রেস খারাপ হয়ে যায়। এদিকে স্থানীয়ভাবে চলাচলের যানবাহন অটো, বাইক রিক্সা চলাচলের চরম দুর্ভোগ হরহামেশা লেগেই থাকে এমন অভিযোগ পথচারীর। অটোরিকশা চালক হান্নান বলেন,দোহার নবাবগঞ্জের সদরের চৌরাস্তা দুটো খুবই ঝুঁকিপূর্ণভাবে রুগীদের উঠানামা করতে হয়। পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা রেখে যদি কাজ করতো এতটা ঝামেলা পোহাতে হতোনা। অব্যবস্থাপনাই একমাত্র কারন বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী করিম খান এলজিইডির নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী মো.শাহজাহান ভূ্ইয়া ও দোহার উপজেলা প্রকৌশলী মো.কবির হোসেন বলেন,সড়কটি এলজিইডির অধিনে নয়।এটি সড়ক ও জনপথ (সওজ) মুন্সিগঞ্জ বিভাগের অধিনে তারাই এর দেখভাল করেন।

নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও( মো. তোফাজ্জল হোসেন ও দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফরোজা রিবা আলাদা আলাদা বলেন, বিষয়টি মুন্সিগঞ্জ সওজ বিভাগের কর্মকর্তাদের একাধিকবার বলেছি কিন্ত কাজ হচ্ছেনা। সওজ মুন্সিগঞ্জ বিভাগের উপ-প্রকৌশলী সৈয়দ আলম বলেন,দোহার থেকে কেরানীগঞ্জের রুহিতপুর পর্যন্ত ৩২ কিলোমিটার সড়ক ২৪ফুট চওড়া করার কাজ চলছে।তাই একটু দুর্ভোগ হচ্ছে। আশা করি খুব তারাতারী এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00