ব্রেকিং নিউজঃ

দোহারে সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

দোহারে সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত পরিবারের সংবাদ সম্মেলন
bodybanner 00

ষ্টাফ রিপোটার:
দোহার উপজেলায় জবর-দখল করে এক পরিবারকে সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত করায় স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে সংবাদ সম্মেলন করেছে পরিবারটি।
গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় উপজেলার জয়পাড়া প্যাপেল শপিং কমপ্লেক্সের দ্বিতীয়তলায় সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত পরিবারের দুইভাই ও চার বোন সংবাদ সম্মেলনে জানান,উপজেলার মধুরচর মৌজার আর এস দাগ-৫৭ এর কাতে ৯৩.৫০ শতাংশ জমি তার মাতা মমতাজ বেগম চামেলীর মৃত্যুর পর ওয়ারিশ হিসাবে তারা তিন ভাই ও চার বোন প্রাপ্য। এই সম্পত্তিতে স্থানীয় নিবাসী আতিকুজ্জামান খোকন নামে সুদি ব্যবসায়ী তার দুইভাই তোয়েল ও জুয়েল শিকদারকে ১০ লক্ষ টাকা ধার হিসাবে দেন দুই বছর আগে।টাকা ধারের বিপরীতে খোকন তার দুই ভাইদের কাছ থেকে খালি ষ্টাম্পে সই সাক্ষর নেন।এক পর্যায়ে উক্ত টাকা ধার মর্গেজ হিসাবে তাদের মাতার ওয়ারিশের সম্পত্তির দুইভাইয়ের কাছ থেকে পাওয়ারনামা রেজিষ্ট্রিকৃত বন্ধকী দলীল গ্রহন করেন খোকন।ধার টাকার বিপরীতে প্রতিমাসে দুইভাই ত্রিশ হাজার টাকা জমা দিতে থাকেন।গত বছরের জুলাই মাস থেকে ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলে তার দুইভাই টাকা দিতে ব্যার্থ হলে সুদি খোকন তার দুইভাইয়ের দেওয়া পাওয়ারনামার বলে তার স্ত্রী খাদিজা বেগমের নামে একটি সাব-কবলা দলীল রেজিষ্ট্রি করে জমির মালিকানা দাবী করেন।গত ৩০/১১/২০১৭ ইং তারিখে খোকন তার ভাড়াটে দলবল নিয়ে জমি দখলের চেষ্টা করলে আমি মোসাম্মৎ পিংকি বেগম ও আমার অন্যান্য তিন বোন ঘটনার বিষয়ে অবগত হইয়া দোহার থানায় একাধিক জিডি ও স্থানীয় পর্যায়ে গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের মাধ্যমে ছাউনি বিচার চাই।থানা পর্যায়ে ও ছাউনি বিচারকদের সামনে সুদি খোকন জানান,ত্রিশ লাখ টাকা দিলে তিনি আমাদের জমি ফিরিয়ে দেবে অন্যথায় তা বিক্রি করে আমাদের টাকার পরিশোধ নিবে।এক পর্যায়ে গত ৩০/১১/২০১৭ তারিখে আদালতের স্বরনাপন্ন হলে আদালতে দেওয়ানী মোকদ্দমা-৬৫/২০১৭,১৫/২০১৮ ও পিটিশন ফৌজদারী কার্যবিধি মামলা- ৭৫/২০১৮ মোট তিনটি মোকদ্দমা দায়ের করি এবং জবর দখলের ঘটনায় দৈনিক আগামীর সময়ে ও স্থানীয় একটি পত্রিকায় সংবাদ প্রচার করা হলে বিবাদী খোকন গত শুক্রবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে ৩০/৩৫ জনের লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে জোরপূর্বক আমাদের জমিটি দখলে নিয়ে সিমানা প্রাচীর নির্মান করতে থাকেন।এ বিষয়ে দোহার থানা পুলিশকে একাধিকবার জানালেও তারা অজ্ঞাত আমাদের কোন সহযোগীতা করেন নাই।বরং পুলিশ বিবাদী সুদি খোকনের পক্ষ নিয়ে তাকে ইটদিয়ে সিমানা প্রাচীর করতে সহযোগীতা করেন।আমরা দোহার থানা পুলিশের কর্মকান্ডে ও ভুমিদস্যু খোকনের জবর-দখলে আতংকে রয়েছি বিধায় আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দেশবাসীকে জানাতে চাই।

Facebook Comments

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00