দোহারে মধ্যরাতে ডাকাতের হামলা,পুলিশি তৎপরতায় রক্ষা পেল মেঘুলা বাজার বনিকরা।

দোহারে মধ্যরাতে ডাকাতের হামলা,পুলিশি তৎপরতায় রক্ষা  পেল মেঘুলা বাজার বনিকরা।
bodybanner 00

 

মাহবুবুর রহমান টিপু,দোহার উপজেলার মেঘুলা বাজারে মধ্যরাতে সংঘবদ্ধ ডাকাতের হামলা
থেকে অন্তত আটটি স্বর্নালংকার ও পাইকারী চাউলের দোকানীরা ডাকাতির কবল থেকে রক্ষা পেল
পুলিশের তৎপরতায়। জানা যায়,গতকাল রোববার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার দ্বিতীয় মেঘুলা হাট-বাজার
স্বর্ন পট্টিতে ১৫/২০ জনের সংঘবদ্ধ আন্ত:জেলা নৌডাকাতরা হামলা চালিয়ে আটটি
স্বর্নালংকার ও পাইকারী চাউলের দোকানের তালা ভেঙ্গে মালামাল লুটকালে ব্যবসায়ীরা পুলিশকে খবর
দিলে দ্রুত টহল পুলিশের তৎপরতায় মালামাল লুট হতে রক্ষা পায় ব্যবসায়ীরা।বাজার সভাপতি
মো.রুবেল কাজি জানান,ডাকাতদল রাত দেড়টার দিকে মেঘুলা বাজারের পশ্চিম দিকে মাত্র দুইশত
গজ দুরে পদ্মা নদীর তীর এলাকায় একটি ট্রলারযোগে ডাতাতদল নামে।এ সময়ে ডাকাতদল অস্ত্রের
মুখে বাজার ও নদীরতীর এলাকায় বাজারের নৈশপ্রহরী ও কয়েকজন দোকানীকে হাত-পা রশি দিয়ে
বেধেঁ ফেলে।পরে বাজারের স্বর্নপট্টিতে আটটি দোকানের তালা ভেঙ্গে ফেলে ভিতরে ঢুকে
মালামাল লুট করতে থাকে।সংবাদ পেয়ে ব্যবসায়ীরা পুলিশকে সংবাদ দিলে কর্তব্যরত টহল টিমের
ওসি(তদন্ত) মো.ইয়াছিন মুন্সি,এস আই সহিদুল ইসলাম,এস আই বারেক স্ধংসঢ়;গীয় ফোর্স
নিয়ে দ্রুত বাজারে পৌছলে ডাকাতদল পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নদীতীরের ট্রলারযোগে
পলায়ন করে।এ সময়ে ডাকাতদল মাখন কর্মকারের স্বর্নালংকার দোকান থেকে ২ ভরি স্বর্ন ও ২০ ভরি
রুপাসহ নগদ সাড়ে দশ হাজার লুটে নেয়।এছাড়াও ডাকাতের কবলে পড়া দোকানগুলো হল মোসলেম
হাওলাদারের চাউলের আড়ত,মায়ের আর্শিবাদ স্বর্নালংকার,লক্ষিসাহা স্বর্নালংকার,স্বপন রাজবংশী
স্বর্নালংকার,স্বপনধর স্বর্নালংকার,ননী রাজবংশী স্বর্নালংকার ও ডা.বাবু চক্রবর্তির ফার্মেসী।
এ বিষয়ে নারিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মেঘুলা হাট-বাজার উন্নয়ন উপদেষ্টা সালাউদ্দিন
দরানী বলেন,নদীভাংনের কারনে বর্তমানে পদ্মা নদী হাট-বাজারের দুইশত গজের মধ্যে থাকায়
আন্ত:জেলা সংঘবদ্ধ ডাকাতদল এ ঘটনা ঘটানোর সুবিধা নিয়েছে।রাত্রীকালীন পাহাড়া বৃদ্ধি
করা হবে।
এ বিষয়ে দোহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সিরাজুল ইসলাম জানান,সংবাদ পাওয়ামাত্র
ঘটনাস্থলে পৌছানোর সুবাদে কোন অঘটন ও হতাহতের ঘটনা ঘটে নাই।তবে এ সকল এরিয়ায়
বাজার কমিটি দূর্বল ও নামমাত্র পাহাড়া নিয়োগ দিয়েছেন।আমি বাজারের কমিটি নিয়ে
দ্রুত আইন-শৃঙ্খলা সভা করবো।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00