ব্রেকিং নিউজঃ

দোহারে পরিবহনের আধিপত্য নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা!

দোহারে পরিবহনের আধিপত্য নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা!
bodybanner 00

মাহবুবুর রহমান টিপু,বিশেষ(ঢাকা)প্রতিনিধি:

দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার যমুনা ও রহমান এন্টারপ্রাইজের যাত্রী পরিবহনের আধিপত্য নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।এ ঘটনায় সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়,গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় দোহার উপজেলার মৈনট ঘাট কার্তিকপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্য ছেড়ে আসা যমুনা সিটিং সার্ভিস ও রহমান এন্টারপ্রাইজের যাত্রী পরিবহনের ষ্টান্ডের আধিপত্য নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে বাকবিতন্ডার ফলে যমুনা পরিবহনের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ নেতা মো.আইযুব আলী রহমান এন্টারপ্রাইজের বাস সার্ভিস বন্ধ করে দেয়।

দোহারে পরিবহনের আধিপত্য নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা!

এর জের ধরে সাড়ে ১২টার দিকে নবাবগঞ্জ উপজেলার মাঝিকান্দা নামক স্থানে রহমান এন্টারপ্রাইজের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন-সম্পাদক জালাল উদ্দিনের নেতৃত্বে যমুনা সিটিং সার্ভিসের পাচঁটি বাস আটক করেন।সংবাদ পেয়ে আওয়ামীলীগের উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন এবং উভয় পরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।এ সময়ে উভয় পরিবহনের চলাচল বন্ধ হয়ে পড়লে হয়রানীতে পড়েন যাত্রীরা।সর্বশেষ সন্ধ্যা নাগাদ উভয় গ্রুপের সাথে বনিবনা না হওয়াতে বাস মালিকপক্ষ যার যার গাড়ি তাদের হেফাজতে নিয়ে যান।এ ঘটনায় দু’গ্রুপের মধ্যে টান টান উত্তেজন্ বিরাজ করছে,পুলিশ তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এ বিষয়ে যমুনা সিটিং সার্ভিসের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো.আইযুব আলী সমকালকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান,দীর্ঘদিন যাবৎ প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে এগার লক্ষ টাকা ব্যায়ে পরিবহনের ছাউনি তৈরী করেছি।নতুন কেউ এসে এর ফায়দা হাসিল করতে হলে আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হবে।অন্যথায় নতুন পরিবহন চালু করা যাবে না। এ বিষয়ে রহমান এন্টারপ্রাইজ দ্রুত পরিবহনের সার্ভিসের পরিচালনা কমিটির সভাপতি জালাল উদ্দিন সমকালকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান,দীর্ঘদিন যাবৎ নবাবগঞ্জের উপর দিয়ে অল্পসংখ্যক বাস যমুনা সিটিং সার্ভিস চলছে।আমাদের এলাকার জনগনের চলাচলের সুবিধার জন্য আমরা কিছু নতুন বাস নামাই রহমান এন্টারপ্রাইজের নামে যা দোহার কার্তিকপুর-মৈনট ঘাট হয়ে ঢাকায় আসবে ও যাবে।এতে অন্যায়ের কিছু দেখতে পারছি না।অথচ যমুনা কতৃপক্ষ আমাদের বাস চলতে দিবে না,তাই আমরা তাদের পরিবহন আমাদের উপর দিয়ে চলতে বাধা দিয়েছি।এটা অধিকার আদায়ের কৌশল,কোন ধ্বংসাত্বক কর্ম নয়। এ বিষয়ে দোহার উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারন-সম্পাদক আলী আহসান খোকন শিকদার সমকালকে জানান,খুব শীঘ্রই আলোচনা করে দু’গ্রুপের সমস্যা সমাধান করা হবে। এ বিষয়ে দোহার থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম সমকালকে জানান,আগামীকালকের মধ্যে উভয় পক্ষকে থানায় হাজির হয়ে সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে জোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে। দোহার,ঢাকা।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00