ব্রেকিং নিউজঃ

ঢাকা জেলা (উত্তর) বাংলাদেশ তাঁতী লীগ সভাপতি সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত

ঢাকা জেলা (উত্তর) বাংলাদেশ তাঁতী লীগ সভাপতি সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত
bodybanner 00
মোঃ আব্দুস সালাম রুবেল, সাভারঃ
হাজী মোবারক হোসেন খোকন, সভাপতি, ঢাকা জেলা (উত্তর) বাংলাদেশ তাতী লীগ, সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ৬ জুলাই (শুক্রবার) রাত আনুমানিক সাড়ে ন’টার দিকে উলাইলের নিজ বাসভবনের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে।  থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং ১ জনকে গ্রেফতার করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

সরেজমিন এবং মোবারক হোসেন খোকনের পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে জানা গেছে, সাভার পৌরসভার সাবেক মেয়র হাজী রেফায়েত উল্লার ভাই হাজী রহমত উল্লার  উলাইলের বাড়ির সাথেই হাজী মোবারক হোসেন খোকনের বাড়ি। তবে উভয়ের চলাচলের পথ মাত্র একটি। সেই পথে বিশ্বকাপ উপলক্ষে প্রোজেক্টর দিয়ে সাবেক মেয়র রেফাত উল্লার ভাইয়ের ছেলেরা খেলা দেখছিলো। অথচ এই রাস্তার জায়গা দিয়ে গেছেন হাজী মোবারক হোসেন খোকনের পিতা। খেলা দেখাকালীন মোবারক হোসেন বাড়ি প্রবেশকালে এই রাস্তা দিয়ে তাকে আসতে বাঁধা দেয় হাজী রহমত উল্লার ছেলে সেন্টু সহ অন্যান্যরা।

এর জেরে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে সেন্টুর নেতৃত্বে সোহান, রাসেল, শাওন, সাব্বির, মন্টু সহ ১৫/২০ জনের মতো সন্ত্রাসীরা দেশীয় ধারালো অস্ত্র এবং লাঠিসোটা নিয়ে মোবারক হোসেনের উপর হামলা শুরু করে। এসময় সেন্টুর কাছে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ছিলো বলে মোবারক হোসেনের পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে এসে তাকে সময়মতো রক্ষা করতে পারে নাই।

এলোপাথাড়ি হামলায় হাজী মোবারক হোসেনের সারা শরীর এবং মাথায় গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে মাটিয়ে লুটিয়ে পড়লে একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।  রক্তাক্ত অবস্থায় তিনি ওখানেই অনেকক্ষণ পড়ে থাকেন। এরপর তাঁর পরিবারের সদস্যরা তাকে দ্রুত এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাবার নির্দেশ দেন।
সন্ত্রাসী সেন্টু এবং তার  সহযোগীদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায় সংশ্লিষ্টতা সহ অবৈধ অস্ত্রে নিয়ে চলাচল এবং আরও নানা অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগ জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সাভার মডেল থানার পুলিশ ৬ জুলাই (শুক্রবার) দিবাগত রাত বারোটার সময় অভিযোগের ভিত্তিতে হাজী রহমত উল্লাহকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যান।

এ বিষয়ে জানতে চেয়ে সাভার মডেল থানার ডিউটি অফিসার মালেকা বানুর মুঠোফোনে কল করা হলে তিনি বলেন, হামলার ব্যাপারে মামলা হয়েছে, নাম্বার ২১ , তারিখঃ ৭ জুলাই, ২০১৮ ইং। হাজী রহমতউল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং বাকী আসামীদের গ্রেফতার অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00