টেকনাফে প্রিয়াঙ্কার অন্যরকম দিন

টেকনাফে প্রিয়াঙ্কার অন্যরকম দিন
bodybanner 00
‘কোন পথ দিয়ে এসেছ? তোমরা কি এই বিশাল নদী-সমুদ্র পার হয়ে এপাড়ে এসেছ?’ রোহিঙ্গা শিশুদের কাছ থেকে এভাবেই তাদের দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা শুনেছেন বলিউড অভিনেত্রী ও ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। বাংলাদেশ সফরের দ্বিতীয় দিনে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে উখিয়ার ইনানি সৈকত সংলগ্ন পাঁচতারকা রয়েল টিউলিপ হোটেল থেকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে প্রিয়াঙ্কা শাহপরীর দ্বীপের হাড়িয়াখালী ক্যাম্পে পৌঁছান প্রিয়াঙ্কা। সেখানে তিনি নাফ নদের কাছাকাছি যেখান দিয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছিল, সেই ভাঙারমুখ নামে পথটি ঘুরে দেখেন।

হাড়িয়াখালী থেকে ফেরার সময় একটি মসজিদের সামনে গাছের নিচে দোভাষীর মাধ্যমে ১৫ রোহিঙ্গা শিশুর সঙ্গে কথা বলেন প্রিয়াঙ্কা। এ সময় নাফ নদের দিকে দেখিয়ে ইমান হোসেন নামে এক শিশুকে বলেন, ‘তোমরা কি এ পথ দিয়ে এসেছ? তোমার জামা নেই?’ জবাবে শিশুটি মাথা নেড়ে জানায়, তারা নৌকায় এ পথ দিয়েই এসেছে, আর তাদের

জামা নেই। পরে পিগি চপসখ্যাত এই নায়িকা শিশুদের সঙ্গে ছবি তোলেন।

সেখান থেকে আসার সময় মাঝপথে গাড়ি থামিয়ে নিরাপত্তারক্ষীদের বলেন, এত পুলিশের প্রয়োজন নেই। তার সামনে-পেছনে বেশি গাড়ি রাখতেও নিষেধ করেন প্রিয়াঙ্কা। পরে শুধু একটি গাড়ি রেখে পুলিশ তাদের নিরাপত্তা কমিয়ে দেয়। টেকনাফ ত্যাগ করার সময় সকাল ১০টা ২০ মিনিটে টেকনাফ নাইট্যং পাহাড়ে গাড়ি থামিয়ে নাফ নদ দেখেন এই নায়িকা। পথে লেদায় ইউনিসেফের কার্যক্রম দেখার জন্য গাড়ি থামিয়েও পরে সেখানে যাননি তিনি। অবশেষে ১০টা ৪০ মিনিটে তিনি উখিয়ার উদ্দেশে রওনা হন।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি রণজিত কুমার বড়ুয়া জানান, হারিয়াখালী ক্যাম্প পরিদর্শনের সময় কক্সবাজারের পুলিশ পরিদর্শক রাজু আহমেদ ও ইউনিসেফের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে উখিয়া প্রতিনিধি জানান, এদিন দুপুর ১২টার দিকে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া উখিয়া জামতলী রোহিঙ্গা শিবিরে পৌঁছান। সেখানে ইউনিসেফের একটি শিশুবান্ধব কেন্দ্রে শিশুদের সঙ্গে বেশ কিছু সময় কাটান তিনি। এ সময় প্রিয়াঙ্কা সেখানে শিশুদের সঙ্গে লুডু, দড়ি লাফ ও দাবা খেলেন। খেলনা চায়ের কাপে চুমুক দেন। এমনকি মাঠে নেমে কিছুক্ষণের জন্য তাদের সঙ্গে ফুটবলও খেলেন। পরে তিনি রোহিঙ্গা শিশু-কিশোরদের আঁকা ছবির প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন। এরপর প্রিয়াঙ্কা যান লম্বাশীল এলাকার আরেকটি শিবিরে। সেখানে থেকে আবারও টেকনাফ এসে পরিদর্শন করেন হোয়াইক্যং উনচিপ্রাং শিবির। সেখানে কিছুক্ষণ থেকে প্রিয়াঙ্কা ফিরে যান হোটেলে। উখিয়া থানার ওসি মো. মাকসুদ আলম জানান, আজ বুধবার প্রিয়াঙ্কা চোপড়া উখিয়ার বালুখালী, কুতুপালং ক্যাম্প ও নাক্ষ্যংছড়ির নোম্যান্স ল্যান্ডে থাকা রোহিঙ্গাদের দেখতে যাবেন।

ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে গত সোমবার সকালে তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে আসেন প্রিয়াঙ্কা। ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজার এসে এই সাবেক বিশ্বসুন্দরী টেকনাফের শামলাপুর অস্থায়ী রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন। সেখানে শিশুদের সঙ্গে বাংলায় কথা বলে তিনি চমকে দেন সবাইকে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00