ব্রেকিং নিউজঃ

চুল রাঙানোর আগে

bodybanner 00

সময়ের সঙ্গে পাল্টে যায় ফ্যাশন। আজকে যা নিউ ফ্যাশন, আগামী দিনে তা-ই ওল্ড! তাই বলে কী ফ্যাশনের সঙ্গে থাকবেন না! সেটা কিন্তু নয়, হাল-ফ্যাশনের সঙ্গে থাকা তারুণ্যের বড় একটা গুণও বটে।সময়ের সঙ্গে পাল্টে যায় ফ্যাশন। আজকে যা নিউ ফ্যাশন, আগামী দিনে তা-ই ওল্ড! তাই বলে কী ফ্যাশনের সঙ্গে থাকবেন না! সেটা কিন্তু নয়, হাল-ফ্যাশনের সঙ্গে থাকা তারুণ্যের বড় একটা গুণও বটে।

চুল রাঙানোর আগে

চুল রাঙানোটা এখন আর হাল-ফ্যাশন নয়, তবে ওল্ড ফ্যাশনও বলা যাবে না। নিজেকে স্মার্ট দেখাতে চুলে রঙ লাগানোর প্রবণতা সব বয়সীদের মাঝেই কমবেশি চোখে পড়ে। এর সঙ্গে চুলের কাটটাও জরুরি, কোনভাবে চুল কাটার পর কেমন রঙে রাঙাতে হবে সেটা বিবেচনার মধ্যে রাখা উচিত।

কোনো উৎসবের সঙ্গে চুলের কাট বা চুল রাঙানোর বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চুল রাঙানোর ধরন কিংবা চুলের কাট সময়ের সঙ্গে পাল্টাচ্ছে। আগামীতেও পাল্টাবে। তবে মনে রাখা দরকার আদতে আপনার শরীরের গঠনের সঙ্গে কোন ধরনের রঙটা মানাবে, চুলটা কেমন করে কাটালে বেশি সুন্দর দেখাবে।
অনেক সময়ই আমরা না বুঝে হয়ত ঝলমলে চুলের জন্য একটা রঙ ব্যবহার করে বসি। কিন্তু দেখা যায়- সেটা হিতে বিপরীতে হয়ে গেল। অজান্তেই চুলের বড় রকমের ক্ষতি করে ফেললাম।

তাই চুল রাঙানোর আগে কোন কোন বিষয় মাথায় রাখা উচিত সে বিষয়ে নাতিদীর্ঘ পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। দেখে নিতে পারি আমরা :

ক. মনে রঙ লেগেছে, সেই রঙ চুলেও লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন! সেটা দোষের কিছু নয়। কিন্তু প্রথমবার চুলে রঙ লাগানোর আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। জেনে নিন-আপনার ত্বক কোন ধরনের, আর কোন ধরনের রঙ ব্যবহারের মাথার ত্বকের কোনো ক্ষতি হবে না।

খ. মনে রাখবেন- চুল রাঙানোর ব্যাপারে আপনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। কিন্তু বিশেষজ্ঞ পরামর্শটাও জরুরি কারণ সঠিক তথ্য না জেনে রঙ করালে সেনসেটিভি স্কাল্পের ক্ষেত্রে বড় ধরনের জটিলতা তৈরি হতে পারে।

গ. রঙটা দেখে মনে হতে পারে এটাই আপনার জন্য পারফেক্ট। কিন্তু সেটা নাও হতে পারে। ত্বকের রঙ, গতি-প্রকৃতির (স্কিন টোন) সঙ্গে মানানসই রঙটাকেই আপনাকে বেছে নিতে হবে। তবেই মনের সঙ্গে রাঙা হবে চুল!

ঘ. বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যাদের ত্বক অপেক্ষাকৃত কালো তারা নীল, গোলাপি অথবা সবুজ ধরনের রঙ লাগাতে পারেন। আর একটু ফর্সা, বেশি ফর্সারা ব্রিক কালার, হলুদ, বাদামি ও কমলা রঙ ব্যবহার করতে পারেন। তারপরও বিশেষজ্ঞ পরামর্শটা জরুরি।

ঙ. মনে রাখা দরকার- স্বাভাবিক চুলের চেয়ে রাঙানো চুলের যত্ন বেশি নেওয়া জরুরি। কারণ পরিচর্যা না করলে রাঙানো চুল ফিকে হয়ে গেলে আপনাকে ক্লিশে দেখাবে। ফলটা নিশ্চয় বুঝতে পারছেন হরিষে বিষাদ চলে আসবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00