খুলনায় খালেককে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ

খুলনায় খালেককে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ
bodybanner 00

মেহেদী হাসান, খুলনা প্রতিনিধিঃ- খুলনা সিটি করপোরেশনে নির্বাচনের জন্য তালুকদার আব্দুল খালেককে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ। রোববার সন্ধ্যা ৭টায় গণভবনে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে দলের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয় খুলনা সিটি নির্বাচনে অাওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের নাম। সিটির মনোনয়ন চুড়ান্ত করতে আজ ৮ এপ্রিল আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা আহবান করা হয়। আজ রবিবার খুলনার সিটি মেয়র প্রাথী হিসেবে তালুকদার আবদুল খালেকের নাম ঘোষণা করা হয়।

দলের একাধিক সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগ সভাপতির নির্দেশে সম্প্রতি খুলনায় কয়েক দফা মাঠ জরিপ চালানো হয়। এসব জরিপ পর্যালোচনায় দেখা যায়, খুলনা সিটিতে অন্য মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তুলনায় এগিয়ে ছিলেন তালুকদার আবদুল খালেক। জরিপ পর্যালোচনায় দলের হাইকমান্ড  খালেকের পক্ষে মত আগেই দিয়েছিল। তাদের দুজনকে প্রার্থী ঘোষণা করা ছিল কেবল সময়ের ব্যাপার মাত্র।

খুলনা সিটির মেয়র পদে তালুকদার আবদুল খালেককেই মনোনয়ন দেওয়া হবে উল্লেখ করে ওই নেতা জানান, তালুকদার খালেক মেয়র থাকাকালীন সময়ে যে সফলতা দেখিয়েছিলেন, তা এখন মানুষ উপলব্ধি করছে। বিগত নির্বাচনে তার পরাজয়ের পর এই শহরের উন্নয়ন কাজ মুখ থুবড়ে পড়েছে। তালুকদার আবদুল খালেকের প্রয়োজনীয়তা এখন টের পাচ্ছে খুলনার মানুষ। খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ বর্ধিত সভায় স্থানীয় নেতারা মেয়র পদে তালুকদার আবদুল খালেকের পক্ষেই জোরাল অবস্থান নেন। এসব বিষয় বিবেচনায় তাকেই খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী করা হয়।

সিটি কর্পোরেশনে দলীয় প্রার্থীদের প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, রবিবার আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের সাক্ষাতকার শেষে প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়। দলীয় কোন্দলের বিষয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের মতো বড় দলে তৃণমূলে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। যেহেতু প্রার্থী চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে তাই ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ মাঠে নামবে। কারণ কোন্দলকারীরা দলে আর প্রশ্রয় পাবেন না, প্রধানমন্ত্রীর এই সতর্কবার্তা সম্পর্কে সবাই ওয়াকিবহাল।

প্রসঙ্গত, গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনে নির্বাচন আগামী ১৫ মে। দুই সিটির প্রার্থী বাছাই নিয়ে বেশ অস্বস্তির মধ্যে ছিল ক্ষমতাসীন দল। খুলনায় নৌকা প্রতীকে মেয়র প্রাথী হওয়র মূল লড়াইয়ে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য তালুকদার আবদুল খালেক এবং প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল। তবে দলের শীর্ষপর্যায় থেকে খুলনা সিটিতে তালুকদার আবদুল খালেককে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হলে কিছুটা নির্ভার হয় আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীলরা।

আগামী ১৫ মে গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ১২ এপ্রিল। মনোনয়ন যাচাই-বাছাই চলবে ১৫ ও ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত। ২৩ এপ্রিল মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00