কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন স্থগিত

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন স্থগিত
bodybanner 00

ফলপ্রসু বৈঠকের পর কোটা সংস্কার আন্দোলন স্থগিত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ অন্যান্য আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক শেষে এক মাসের জন্য আন্দোলন স্থগিত রাখার ঘোষণা দেন আন্দোলনকারীদের সমন্বয়ক হাসান আল মামুন।

 

প্রধানমন্ত্রীর কোটা পদ্ধতি পরিক্ষা-নিরীক্ষা নির্দেশের প্রেক্ষিতে আগামী ৭ মে পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত রাখা হয়েছে উল্লেখ করে হাসান আল মামুন বলেন, দেশরত্ন শেখ হাসিনা সবসময় ছাত্রসমাজের উপর সহানুভূতিশীল। তিনি এর আগেও ছাত্রদের দাবি-দাওয়া মেনে নিয়েছেন।

 

‘সারাদেশে দাবানল ছড়িয়ে পড়বে, à¦à§‡à¦•à¦¾à¦¤à§‡ পারবেন না’সোমবার সকাল ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে আন্দোলনকারীদের সংবাদ সম্মেলন।

 

এই কোটা সংস্কারের দাবিও তিনি মেনে নেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি আরো বলেন, আটক শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকেই কোটা পদ্ধতি নিরীক্ষার স্বার্থে আগামী এক মাস আন্দোলন স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

 

এ সময় সেতুমন্ত্রী বলেন, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা আটক হয়েছেন তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হবে। এছাড়া যারা আহত হয়েছেন তাদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থাও করবে সরকার।

 

ওবায়দুল কাদের শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমরা রাস্তা অবরোধ করলে সাধারণ মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। প্রধানমন্ত্রী তোমাদের আন্দোলন সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থেকেই কোটা পদ্ধতি পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন।

 

বৈঠকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এনামুল হক শামীম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, মুক্তযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

 

বৈঠকে শিক্ষার্থীদের ২০ সদস্যের ওই প্রতিনিধিদলে নিলয়, আল ইমরান, মামুন, সুমন, ফারুক, সোহেল, সন্ধান, সাথী, দীনা, আরজিনা, লুবনা, কানিজ, তিথী, উজ্জ্বল, তারেক, নূর, ইকবাল, লিটন, ইলিয়াস, সুমন নামের ২০ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00