কারাগারের ডে-কেয়ার নয়, জেল সুপারের কক্ষে খালেদা

কারাগারের ডে-কেয়ার নয়, জেল সুপারের কক্ষে খালেদা
bodybanner 00

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের ডে-কেয়ার সেন্টারে নয়, মূল ফটকের ভেতরে একটি দোতলা ভবনের নিচতলার কক্ষে রাখা হয়েছে।

কক্ষটি সিনিয়র জেল সুপারের অফিস কক্ষ হিসেবে ব্যবহৃত হতো।কারাসূত্রে জানা গেছে, ছয়জন মহিলা কারারক্ষী তিন শিফটে খালেদা জিয়ার পাহাড়ায় নিযুক্ত থাকবেন।

এছাড়া তার নিরাপত্তায় কারাগারের ভেতরে ২৫ জন কারারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে।কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজনস) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী, ভিভিআইপি। তার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। তার স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখতে সার্বক্ষণিক চিকিৎসক থাকবেন। এছাড়া পুলিশ, র‍্যাব, ও আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সবার সহযোগিতায় পুরোনো কারাগার এলাকায় সম্পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।’

ডিআইজি (প্রিজন্স) তৌহিদুল ইসলাম বলেন,’কারা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই খালেদা জিয়াকে কারাগারের মূল ফটকের ভেতরে অফিস ভবনে রাখা হয়েছে।’ যদিও এর আগে সন্ধ্যায় কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল কারাগারের ভেতরের একটি ভবনে ডে-কেয়ার সেন্টারে তাকে রাখা হয়েছে।

কারা সূত্র জানিয়েছে, প্রথম শ্রেণির বন্দিদের জন্য কারাগারে প্রতিদিন চিকন চালের ভাত, মাংস, সবজি ও ডালের ব্যবস্থা থাকে। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর জন্যও তাই থাকবে। এছাড়া সকালে থাকবে পছন্দসই নাস্তা, বিকালে ফলমূল। সেসব খাবার হবে উন্নত মানের। এক্ষেত্রে তার পছন্দকে গুরুত্ব দেওয়া হবে।

এছাড়া খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য সার্বক্ষণিক একজন চিকিৎসক থাকবেন বলে জানা গেছে, যিনি তার খাবারও পরীক্ষা করবেন। যদি দি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে তাহলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে তাকে স্থানান্তর করা হবে।

কারা বিধির ৬১৭ ধারা অনুযায়ী ভিভিআইপি হিসেবে পত্রিকা ও টেলিভিশন দেখার সুযোগ পাবেন বিএনপি প্রধান। তবে টেলিভিশনে তিনি বিটিভি ছাড়া অন্য কোন চ্যানেল দেখার সুযোগ পাবেন না। আর তিনটি জাতীয় দৈনিক দেয়া হবে তাকে। চাহিদা অনুযায়ী বই পড়ারও সুযোগ পাবেন তিনি। সাত দিনে একবার চিঠি লিখতে পারবেন।

সূ্ত্র আরো জানিয়েছে, খালেদা জিয়াকে যে কক্ষে রাখা হয়েছে সেখানে কোনও এয়ার কন্ডিশন নেই। তবে উন্নতমানের চেয়ার-টেবিল, খাট, নিয়ম অনুযায়ী অন্যান্য আসবাবপত্র ও মশারি দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার পুরানো ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এছাড়া মামলার অপর আসামি বিএনপি প্রধানের ছেলে তারেক রহমানসহ বাকী আসামিদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। তাদেরকে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00