কাউয়া থেকে সাবধান: পার্থ

কাউয়া থেকে সাবধান: পার্থ
bodybanner 00

‘দাড় কাউয়ামুক্ত মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগ চাই’ দাবি সম্বলিত বিলবোর্ডের সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করে সব রাজনৈতিক দলকে এই কাউয়া থেকে সাবধান থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আন্দালিব রহমান পার্থ। তিনি বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) চেয়ারম্যান ও ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা।
কাউয়া থেকে সাবধান: পার্থপার্থ তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে নিউজটি শেয়ার করে লিখেছেন: -‘শুধু কাউয়া না , এখানে সুট পরা কাউয়া, পাঞ্জাবি পরা কাউয়াও আছে। এদের কোন এলাকা নেই , কর্মী নেই। কোন কর্মীর দায়িত্ব কিংবা খবর এরা রাখে না। কোন কর্মীর বিপদে এরা দাঁড়ায় না, একটা টাকাও খরচ করে না। এরা জীবনে একটা মেম্বার নির্বাচনও করে নাই বা করার যোগ্যতাও নাই। এরা কেবল মাত্র বিভিন্ন টকশোতে তত্ত্ব, দর্শন আর পরিসংখ্যান দিতে থাকে । এদের রাজনীতি অনেক খানি বই পড়ে সাইকেল চালানো শেখার মতন। এরা ছোট ছোট দলে ঘুরে বেরায় আর সরকারি কিছু কিছু উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে খাতির রাখে। কিভাবে একটা মনোনয়ন পাওয়া যায় সেটাই একমাত্র উদ্দেশ্য।’

আন্দালিব রহমান পার্থ লিখেছেন, ‘এরা গণজাগরণের সময়ে সামনে থেকে গলা ফাটায় কিন্তু গণজাগরণ যখন ধাওয়া খায় তখন এরা পালায়। এরা হেফাজতে ইসলাম এর বিরুদ্ধে সোচ্চার কিন্তু সরকার যখন হেফাজত এর সাথে মিটিং করে এরা নিশ্চুপ। এরাই প্রকৃত হাইব্রিড …ডিজিটাল হাইব্রিড।’ ২০ দলের শীর্ষ এই নেতা লিখেছেন, ‘প্রত্যেক রাজনৈতিক দলের এদের কাছ থেকে সাবধান থাকা উচিত যদিও এরা সাধারণত সরকারি দলের ওপর ভর করে। এরাই সুন্দর সুন্দর তত্ত্ব দিয়ে সরকারকে জনগণের কাছ থেকে অনেক দূরে সরিয়ে নেয়। বড় গাছের শুকনো পাতায় বাস করা কীটপতঙ্গ ঝড়ের সময় সবার প্রথমেই ঝরে পড়ে। এরাও পড়ে যাবে।’ মোহাম্মদপুর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জানান, দলে অনুপ্রবেশকারী ঠেকাতে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের দীর্ঘদিনের ঘোষণা ছিল।  এবার মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরাও এ দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন। তারা ব্যানার ফেস্টুন করে অনুপ্রবেশকারীদের দলে না নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।
রাজধানীর ধানমন্ডির ২৭ সড়কের শংকর আবাসিক এলাকার বিক্রমপুর মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের সামনে ৩০ ফুটেরও বেশি দৈর্ঘ্যের বিলবোর্ডটি সাঁটানো হয়েছে। ‘দাড় কাউয়া মুক্ত মোহাম্মপুর থানা আওয়ামী লীগ চাই’ লেখাটির ডানপাশেই বিশাল একটি দাঁড় কাকের ছবি দেওয়া হয়েছে। শনিবার সকাল বেলাই ধানমন্ডির ওই সড়কে বিলবোর্ডটি দেখতে পায় স্থানীয়রা। এরপর ছবিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00