কর্ণফুলী নদী ও কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গন রোধে প্রায় ৮শ’কোটি টাকার পৃথক তিন প্রকল্প

কর্ণফুলী নদী ও কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গন রোধে প্রায় ৮শ’কোটি টাকার পৃথক তিন প্রকল্প
bodybanner 00

মো: ইরফান উল হক, রাঙ্গামাটি:-
কর্ণফুলী নদী ও কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গন রোধে তিনটি আলাদা প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিরোধ ও পুণঃ খনন কার্যক্রম হাতে নিচ্ছে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়। তিনটি আলাদা প্রকল্পের সম্ভাব্য ব্যায় বরাদ্দ ধরা হয়েছে ৭৯৬ কোটি টাকা। প্রকল্পগুলো ইতোমধ্যে পরীক্ষা নিরীক্ষাশেষে চুড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানিয়েছে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন। জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশনে রাঙামাটির সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদারের তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে পানি সম্পদ মন্ত্রী এ তথ্য জানান। তিনটি প্রকল্পের মধ্যে ১২৮ কোটি ৭৭ লক্ষ টাকা প্রথম প্রকল্পের মাধ্যমে কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গনরোধে রাঙামাটি সদরে ফিসারী ঘাট হতে পুরাতন বাস স্ট্যান্ড পর্যন্ত সংযোগ সড়ক বাঁধটির উন্নয়ন ও সংরক্ষণের কাজ করা হবে।

কর্ণফুলী নদী ও কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গন রোধে প্রায় ৮শ’কোটি টাকার পৃথক তিন প্রকল্পএছাড়া ১৬৫ কোটি ৩৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রাঙামাটি জেলার কর্ণফুলী ও কাচালং নদীর বিভিন্ন এলাকায় ভাঙ্গনরোধে প্রতিরক্ষা কাজ শীর্ষক আরো একটি প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন থাকার কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া ও বোয়ালখালী উপজেলা এবং রাঙামাটি জেলার কর্ণফূলী ও ইছামতি নদী এবং সংযুক্ত খাল সমুহের উভয় তীরবর্তী বিভিন্ন ভাঙ্গন কবলিত এলাকা রক্ষাকল্পে নদীসমূহের ড্রেজিং ও তীর সংরক্ষণে সর্বমোট ৫০২ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকার আরো একটি প্রকল্পসহ মোট তিনটি প্রকল্প প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মন্ত্রী সংসদে জানান, কাপ্তাই হ্রদের ভাঙ্গন রোধ ও ড্রেজিংয়ে বর্তমানে কোনো প্রকল্প চলমান না থাকলেও এ নিয়ে প্রকল্পের গুরুত্ব সরকারের বিশেষ বিবেচনায় রয়েছে। তিনি জানান, ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে প্রাকৃতিক সৌন্দযের লীলাভূমি এবং পর্যটন নগরী খ্যাত পাহাড় ও হ্রদ বেষ্টিত পার্বত্য জেলা রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের পানি বৃদ্ধি করে অত্রাঞ্চলের নিন্মাঞ্চলীয় এলাকাগুলোতে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। পানির স্রোতে এই অঞ্চলের কিছু অংশ প্রতি বছরই ভাঙ্গনের কবলে পড়ে। এতে করে পার্বত্য এই জেলার প্রার্ন্তিক পর্যায়ের বিরাট একটি অংশ চরম দারিদ্রতা ও সহায়সম্বলহীন হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় এই ধরনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষায় উদ্দোগ
নিতে যাচ্ছে বর্তমান সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়।এদিকে বিগত ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে সর্বমোট ৬৩টি সেতু/কালভার্ট নির্মিত হয়েছে জানিয়ে ত্রাণ-দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া-বীর বিক্রম বলেছেন, গ্রামীণ রাস্তায় কম-বেশী ১৫মিঃ দৈঘ্যের সেতু/কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় চলতি ২০১৭-১৮ অর্থ বছরেই রাঙামাটি জেলায় সেতু/কালভার্ট নির্মাণে দরপত্র আহবান প্রক্রিয়াধীন আছে এবং শীঘ্রই দরপত্র আহবান করা হবে। মন্ত্রী জানান, বিগত ২০১৬/১৭ অর্থ বছরে রাঙামাটির সদর উপজেলায়-৫, কাউখালী উপজেলায়-৫, কাপ্তাই উপজেলায়-৬, বরকল উপজেলায়-৭, বাঘাইছড়ি উপজেলায়-৮, নানিয়ারচর উপজেলায়-৫, রাজস্থলী উপজেলায়-৫, লংগদু উপজেলায়-১৩, বিলাইছড়ি উপজেলায়-৩ এবং জুড়াছড়ি উপজেলায় ৬টি সেতু/কালভার্ট প্রকল্প বাস্তবায়িত করা হয়েছে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00