‘কথা বলতে অধিনায়কত্ব লাগে না’

‘কথা বলতে অধিনায়কত্ব লাগে না’
bodybanner 00

কথা বলতে ‘চাকরি’ লাগে না। পগবা যদি বাংলাদেশের কেউ হতেন তবে হয়তো এই ধরনের কথাই বলতেন। সামাজিক মাধ্যমে ট্রল হওয়া এক বাক্যের কাছাকাছি রূপ। কিন্তু পগবা তো ফ্রান্সের লোক। খেলেন ফ্রান্স জাতীয় দল আর ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে। আর তাই তাকে একটু ঘুরিয়ে বলতে হলো, কথা বলতে অধিনায়কত্ব লাগে না।

মাঠ কিংবা মাঠের বাইরে ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী পল পগবা আলোচিত নাম। দলবদলের মৌসুম জুড়ে স্প্যানিশ লিগে আসছেন বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে। এসব নিয়ে মরিনহোর সঙ্গে সম্পর্কে ফাটল ধরেছে। সম্প্রতি ‘ইউনাইটেডের আরও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলা উচিত’সহ প্রকাশ্যে নানান কথা বলেছেন পল পগবা। এতে তাকে সতর্ক করেছেন জাতীয় দলের কোচ দিদিয়ের দেশম।

মরিনহোর সঙ্গে সম্পর্কের অবনতির জেরে এরই মধ্যে ম্যানইউর সহঅধিনায়কত্ব থেকেও সরে যেতে হয়েছে তাকে। এ অবস্থায় মিডিয়ার সামনে কথা বলার সময় পগবাকে আরও সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম। ক্লাব ফুটবল ছেড়ে জাতীয় দলের ডিউটিতে যাওয়া পগবাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, অধিনায়ক হওয়ার ইচ্ছা আছে কি-না তার? বিশেষ করে ম্যানইউর সহঅধিনায়কের পদ থেকে বাদ পড়ার পর ফ্রান্সের নেতৃত্ব পাওয়ার?

২৫ বছর বয়সী মিডফিল্ডার অবশ্য একটু ঘুরিয়ে উত্তর দিয়েছেন, ‘আমি ফ্রান্সের অধিনায়ক হওয়ার জন্য খেলছি না। এখানে একজন খেলোয়াড় হিসেবে সুযোগ পাওয়াটাই আমার কাছে অনেক বড়। আর কথা বলতে অধিনায়কত্ব লাগবে কেন? কথা তো আর্মব্যান্ড ছাড়াই বলা যায়।’

এক সময়ে জুভেন্তাসের সাবেক সতীর্থ আন্দ্রে পিরলোর প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘অধিনায়ক মাঠে কথা বলে। আবার এমনও অধিনায়ক দেখেছি জরুরি না হলে কথাই বলেন না। পিরলোও তো অধিনায়ক ছিল; কিন্তু ড্রেসিংরুমে সে কথা বলত না। তার যা কথা তা মাঠে বলতেন। এটাই সত্যিকারের অধিনায়কত্ব।’

Facebook Comments

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00