এক ছাদের নিচে বহুপণ্যের মেলা

এক ছাদের নিচে বহুপণ্যের মেলা
bodybanner 00


রাজধানী ঢাকায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হলো ১১তম ‘এশিয়ান ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো ২০১৭’।

এক ছাদের নিচে বহুপণ্যের মেলা
পাঁচ দিনব্যাপী এ  প্রদর্শনীর আয়োজক সেমস গ্লোবাল। একই ছাদের নিচে ১২-১৬ ডিসেম্বর ট্রেড অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোর পাশাপাশি চলবে ‘কিডস অ্যান্ড টয়েজ এক্সপো ২০১৭’, ‘বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড ফেয়ার ২০১৭’ ও ‘বিউটি অ্যান্ড ফিটনেস এক্সপো ২০১৭’। প্রধান অতিথি হিসেবে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. কামরুল ইসলাম। বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক আফতাব-উল-ইসলাম ও সেমস গ্লোবালের সভাপতি এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেহেরুণ এন ইসলাম প্রমুখ এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন। দেশ স্বাধীনের আগে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ইপসিকের জন্ম হয়। সেই ইপসিকই বিসিক হিসেবে শিল্পায়নের ভিত্তি তৈরি করেছে এমন তথ্য জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বিসিকের ব্যবস্থাপনায় ৭৬টি শিল্পনগরী আছে। তিনি এই ট্যুরিজম শিল্পখাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী আয়োজনের মাধ্যমে এশিয়া অঞ্চলের দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধির পাশাপাশি পর্যটন শিল্পখাতে বিনিয়োগ বাড়বে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী   আরো বলেন, এ উদ্যোগ ক্রেতা-ভোক্তা ও উৎপাদকদের মধ্যে কার্যকর সেতুবন্ধনে একটি সময়োপযোগী প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে। এখানে আগত দর্শণার্থীরা নতুন পণ্য ও প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত হবার সুযোগ পাবেন। এর ফলে তাদের মধ্যে পণ্যের গুণগতমান ও বৈচিত্রতা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়বে। একই সঙ্গে প্রদর্শনীতে অংশ নেয়া উদ্যোক্তা বাংলাদেশি ভোক্তাদের রুচি ও পছন্দ সম্পর্কে ধারণা পাবেন। পাশাপাশি তারা বাংলাদেশে পণ্যের চাহিদা ও বিনিয়োগের সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে পারবেন। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের উদীয়মান শিল্পখাতে সরাসরি কিংবা যৌথ বিনিয়োগের সুযোগ বাড়বে । এছাড়া  আয়োজকরা জানান যে এ প্রদর্শনীতে থাইল্যান্ড, চীন, ভারত, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর,  শ্রীলংকা, নেপাল, ভুটান, মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় ২২০টি দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তা  প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে। এতে পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি ও পণ্য, নিরাপদ খাদ্য ও পানীয়, বিউটি অ্যান্ড লাইফস্টাইল সামগ্রী, গৃহসজ্জা সামগ্রী, কারু ও হস্তশিল্প, খেলনা ও রকমারী পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে। এছাড়া ট্যুরিজম ও সার্ভিস উপকরণের জন্য থাকছে বিশেষ আয়োজন। প্রদর্শনীটি     প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

Facebook Comments

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bodybanner 00