brandbazaar globaire air conditioner
ব্রেকিং নিউজঃ

অনিয়মের অভিযোগে ইউপি ডিজিটাল সেন্টারে তালা!

অনিয়মের অভিযোগে ইউপি ডিজিটাল সেন্টারে তালা!
epsoon tv 1

মোঃ রুহুল আমিন( চৌগাছা) যশোর,প্রতিনিধিঃ


চৌগাছার সিংহঝুলি ইউনিয়ন পরিষদের ভিজিডি কার্ডের অনিয়মের অভিযোগে ডিজিটাল সেন্টারে তালা মেরে দিয়েছেন ইউপি সদস্য সহিদুল ইসলাম।


আজ মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার সিংহঝুলি ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে তালা মেরে দেন ওই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের (জগন্নাথপুর) ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম। এ সময় অন্য ইউপি সদস্যরাও সেখানে ছিলেন।

জানা গেছে সিংহঝুলী ইউনিয়নে নতুন করে ১৯২ জন হতদরিদ্র নারীকে এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার কথা রয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিল বাদল প্রত্যেক মেম্বারকে ৯/১০ করে তালিকা দেয়ার জন্য বন্টন করে দেন। সে মোতাবেক ইউনিয়নের ৪নং জগন্নাথপুর ওয়ার্ডের মেম্বার শহিদুল ইসলামকে ১০টি কার্ডের তালিকা দিতে বলা হয়।

তিনি সে মোতাবেক তালিকা দিলেও চেয়ারম্যানের নির্দেশে সে তালিকা থেকে মাত্র ৩ জনের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয় এবং সাতজনকে বাদ দেয়া হয়।

একইভাবে জামাল মেম্বারকেও ১০ জনের তালিকা দিতে বলা হয়। তার তালিকা থেকেও ৩ জনের নাম দিয়ে সাত জনের বাদ দেয়া হয়। ইউনিয়নের প্রায় প্রত্যেক সদস্যের তালিকা থেকে’ই এভাবে বাদ দিয়ে চেয়রম্যান নিজের পছন্দমত ব্যক্তিদের তালিকা করেছেন।

এবিষয়টি নিয়ে আজ মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্দোক্তা এগুলো উল্টোপাল্টা করেছে। পরে ক্ষুব্ধ হয়ে শহিদুল মেম্বার ইউনিয়ন পরিষদ ডিজিটাল সেন্টারে তালা মেরে দেন।মেম্বার শহিদুল ইসলাম তালা মারার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন আমাদের আলোচনা শেষে জানানোর মত হলে আপনাদের জানাবো।

 
ইউপি সদস্য জামাল হোসেন বলেন আমাকেও ১০ টি নামের তালিকা দিতে বলা হয়েছিল। সেখান থেকে মাত্র ৩জনের নাম অনলাইনভুক্ত হয়েছে। এখন অন্য দুঃস্থরা বঞ্চিত হলো। আমরা তাদের কাছ থেকে ছবি আইডি কার্ড নিয়েছি। তাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছি কার্ড হবে। এখন যদি না হয় তাহলে আমাদের সম্মানটা কোথায় থাকলো? এ বিষয়ে ক্ষুব্ধ হয়েই তিনি তালা মেরে দিয়েছেন।


এবিষয়ে বক্তব্য নিতে ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিল বাদলের সেলফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেন নি।


epsoon tv 1

Related posts

body banner camera